প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপির ভুল রাজনীতি এবং শেখ হাসিনার এগিয়ে যাওয়া

মাহফুজুর রহমান : ১.বিএনপির রাজনীতি নিয়ে কিছু আর লিখতেই মনে চায় না। একমাত্র জিয়াউর রহমানের ইমেজের উপরেই এই দলটি টিকে ছিলো, এখন উনার স্ত্রী ও ছেলের কারণেই তা আত্মহনন করার অবস্থায়। তবে দলটিকে ভক্তি করার মতো বুদ্ধিজীবির অভাব নেই, যা মার্কারের সঠিক পরিচালনার জন্যে হাস্যরসের পরিস্থিতিতে আছে।
দলটি ক্ষয়িষ্ণু একটি রাজনৈতিক শক্তি। তারা বুঝতে পারেনা যে, জনগণের ভালোবাসা কচু পাতার ওপরে পানির মতো! এটাকে ধরে রাখতে হয়, যা যে কোনো সময় ছলৎ করে গড়িয়ে পড়তে পারে! তাদের প্রথম ভুল ছিলো ১৯৮৬ সালের নির্বাচনে অংশ না নেওয়া। দ্বিতীয় ভুল ছিলো, আওয়ামীলীগের সাথে এতো মিলেমিশে এরশাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করা। কারণ তাদের জ্ঞানের অভাব ছিলো যে, দুটি দলের আদর্শ এক নয়। তৃতীয় ভুল ছিলো , ১৯৯১ সালে এরশাদের বিরুদ্ধে অসংখ্য মামলা দায়ের করা। শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা করা যা রাষ্ট্রীয় মদতে হয়েছিলো। চতুর্থ ভুল ছিলো, রাজনীতির প্রকৃত শত্রুকে চিনতে না পারা ও এরশাদকে চার দলীয় জোটে ধরে না রাখতে পারা, খুব তুচ্ছ মনে করা। পঞ্চম ভুল ছিলো, ২০১৪ তে নির্বাচন না করা ও অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেওয়া। শেখ হাসিনার আলোচনার আকুতিকে তাচ্ছিল্য করা। ষষ্ঠ ভুল ছিলো, তারা তাদের প্রতি পক্ষকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করা।
পক্ষান্তরে, শেখ হাসিনা মেধা প্রজ্ঞায় পিতাকেও ছাড়িয়ে গেছেন। ১৯৭৫ এর পূর্ববর্তী সময়ের বাম রাজনীতির নেতাদের বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির পতনের সহায়ক হলেও ১৯৯০ পরবর্তীতে শেখ হাসিনা কিভাবে ধীরে ধীরে তাদের আওয়ামী রাজনীতির ছাতার নীচে ঢুকিয়ে তাদের ব্যবহার করে নিজেকে আরও শক্তিশালী করলেন আর বর্তমানে তাদের উচ্ছিষ্ট মনে করে কিছুটা দূরে রাখলেন (হয়তো কিছুদিন পরেই তাদের করুণ পরিণতি অপেক্ষাও করছে)। আজ শেখ হাসিনা স্বয়ংসম্পূর্ণ রাজনীতিতে।
এরশাদকেও তিনি কীভাবে ব্যবহার করছেন মেকিয়াভেলি রাজনীতির দর্শন ইউজ করে? কীভাবে তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিজেকে শ্রেষ্ঠ প্রমাণিত করছেন, এসব নিয়েও একদিন ইতিহাসবিদগণের গবেষণা করতে হবে। কীভাবে তিনি অর্থনৈতিক সামরিক শ্রেষ্ঠত্বের দিকে ধাবিত হচ্ছেন। কীভাবে তিনি দেশের রাজনীতি ছেড়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে প্রবেশ করছেন।
২.আওয়ামী সরকারের সমালোচনা করার মতো রাজনৈতিক দল ও নেতা আর এই দেশে নেই! কি সুন্দর ফুলের বিছানায় তারা আছে! যে বাম দলগুলো একসময় সরকারের সমালোচনা করে সরকারের নানান অপকর্ম জনগনের সামনে তুলে ধরতো তাদের আওয়ামী সরকার ক্ষমতার স্বাদ দিয়েছে, তারাও দুর্নীতিতে বেশ পরিপুষ্ট হয়েই আছে, এখন ক্ষমতায় না থাকলেও এখন তাদের আর সরকারের সমালোচনা করার উপায় নেই (এটা আমরা বুঝি) ।
আমরা সবাই এখনো আমাদের চারপাশে আওয়ামী লীগের দুর্নীতি-লুটপাট-দখল-চাঁদাবাজি দেদারছে দেখি, নেতাদের তা দিয়ে নানান অপকর্ম করাও দেখি। যে বিএনপির, নিজেরা হাজার দুর্নীতি করা সত্ত্বেও, সরকারের অপকর্মের সমালোচনা করার কথা ছিলো তারাও প্যারালাইজড হয়ে আছে। জামায়াতের অবস্থা তো হিমঘরে! আর জাতীয় পার্টি? নেতাদের ক্ষমতায় থেকে দুর্নীতির ক্ষতিয়ান তো আছেই! কিছু কইতে গেলেই মামলা চালু হবে। আর এরশাদের তো মঞ্জুর হত্যার মামলা আছেই। অর্থাৎ, সব মিলে মহাসুখে আছে সরকারি দল। (এটা একটি নিরেপক্ষ পর্যবেক্ষন)। ফেসবুক থেকে

সর্বাধিক পঠিত