প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আর মাত্র ১দিন, পড়শু পর্দা নামছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার

স্বপ্না চক্রবর্তী : মাত্র আজকের দিনটি। আগামী পড়শু পর্দা নামছে ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর রাজনৈতিক অবস্থা স্থিতিশীলসহ ফাল্গুনী আবহাওয়া থাকায় মেলার শুরু থেকেই জমানো ছিলো মেলা প্রাঙ্গণ। বিশেষ করে সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে মেলায় তিল ধারণের ঠাঁই মিলেনি। ভিড় ভাট্টা এড়াতে অনেকে আবার অফিস দিনগুলোতেও ভিড় জমান মেলায়। তাই জমজমাট ছিলো অফিস দিনগুলোতেও।

বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক ছুটির আগের রাতে মেলা প্রাঙ্গন মুখরিত ছিলো ক্রেতাদের ভিড়ে। তবে এদিন দর্শনার্থীর সংখ্যা কমই ছিলো। সময় কম থাকায় সবাই নিজেদের পছন্দ মতো পণ্য কিনেই বাড়ি ফিরছিলেন। তবে মেলাকে ঘিরে আগাঁরগাঁও এলাকায় সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। ভোগান্তিতে পড়ে অন্যান্য যাত্রীরা। শুক্রবারেই মেলার সমাপ্তি ঘোষণা করার কথা থাকলেও ব্যবসায়ীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ১দিন
বাড়ানো হয়। তাই আজ মেলার শেষ শুক্রবার। এদিন মেলা প্রাঙ্গন জন¯্রােতে পরিণত হতে পারে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা। শেষ মুহুর্তে পণ্য বিক্রি করতে সর্বোচ্চ ছাড় দিচ্ছেন বিক্রেতারাও। শুরুতে ক্রোকারি আইটেমের মধ্যে মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনলে সঙ্গে ১০টি হোম অ্যাপ্লায়েন্স ফ্রি দেওয়া হলেও গত শুক্রবার থেকে অনেক ক্রোকারিজ স্টলে ১৩ থেকে ১৫টি আইটেম ফ্রি দিতে দেখা গেছে। তাই ক্রেতাদের মুখে চাঁদরাতের হাসি। রাজধানীর মগবাজার থেকে মেলায় আসা গৃহিণী শিপা রহমান বলেন, সারাটা মাস অপেক্ষা করেছি এই ছাড়ের। আজ পছন্দমতো পণ্যে এসব বিশেষ ছাড় পেয়ে দারুণ খুশি। এ ছাড়া খাবার ও কসমেটিক্স স্টলগুলোর সামনে ৫ থেকে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ ছাড় দেয়ার ব্যানারও টাঙানো দেখা গেছে। পোশাকের স্টলগুলোয় একই চিত্র দেখা গেছে। তবে মেলার সময় আরেকটু বাড়ানো দরকার ছিলো বলে দাবি করছেন ব্যবসায়ীরা।

মেলার সহযোগী আয়োজক প্রতিষ্ঠান রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুারো সূত্রে জানা যায়, ৯ জানুয়ারি শুরু হওয়া মেলার পর্দা নামছে আগামী পড়শু। অন্যান্য বছরের মতোই প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে মেলা চলেছে রাত ১০টা পর্যন্ত। প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য মেলার টিকেটের মূল্য ধরা হয়েছিল ৩০ টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০টাকা। প্রথমবারের মতো এবারের মেলার টিকিট পাওয়া গেছে অনলাইনেও। এছাড়া মেলায় প্যাভিলিয়ন, মিনি-প্যাভিলিয়ন, রেস্তোরাসহ মোট স্টলের মোট সংখ্যা ছিলো ৬০৫টি। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ছিলো ১১০টি, মিনি-প্যাভিলিয়ন ৮৩টি ও রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য স্টল ৪১২টি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত