প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজেকুজ্জামান রতন বললেন, মহাজোট সঙ্গিকে বিরোধীদলের আসনে বসানোর আয়োজন চলছে

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদে বিরোধীদল কারা? এ নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে এক মধুর জটিলতা। কখনো অনুরোধ, কখনো উপেক্ষা করে ভোট সঙ্গি ও মহাজোট সঙ্গিকে বিরোধী দলের আসনে বসানোর আয়োজন চলছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, জোর করে বিরোধীদল বানানো আইন সঙ্গত বা যুক্তি সঙ্গত হচ্ছে কিনা তা নিয়ে আলোচনা চলবে অনেকদিন। কিন্তু ন্যায় সঙ্গত যে হচ্ছে না তা স্পষ্ট এবং এ নিয়ে বিতর্ক করার কিছু নেই। দশম সংসদেও বিরোধী দল ছিল। তারা সরকার সমর্থিত বিরোধীদল হিসেবে হাস্যকর ভূমিকায় নিজেরাও লজ্জা পেয়েছেন, কখনো আত্মপরিচয় খুঁজতে প্রশ্ন করেছেন সরকারের কাছেই। সরকার বলেছেন, এরা হচ্ছে কার্যকর বিরোধী দল।

তিনি বলেন, যারা বিশৃঙ্খলা করে না, ওয়াক আউট করে না বরং সংসদীয় রাজনীতিতে নতুন ধারা সৃষ্টি করেছে। বাস্তবে জনগণ দেখেছে, ৬০ জন সংসদ সদস্য উপস্থিত না হওয়ায় কোরাম পূর্ণ হচ্ছে না, প্রশংসা এবং নিন্দা করেই সময় পার করা হচ্ছে। সংসদ সদস্যদের যে কাজ প্রধান অর্থাৎ আইন প্রণয়নের কাজে সময় দেয়া হচ্ছে খুবই কম। সংসদ গণতন্ত্র চর্চার কেন্দ্রবিন্দু হবে এই বহুল প্রচলিত কথা যেন তাৎপর্য হারিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশের নির্বাচনে ও সংসদের কার্যক্রমে। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ছিল সকলের অংশগ্রহণ বিহীন, একাদশ সংসদ নির্বাচনকে তা বলা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন হয়েছে প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণে কারসাজির নির্বাচন। নির্বাচনী কারচুপির নতুন দৃষ্টান্ত যেমন সৃষ্টি হচ্ছে, সংসদীয় গণতন্ত্রের তেমনি নতুন নতুন নজির সৃষ্টি করা হবে। এবারের বিরোধী দল হবে ফরমায়েসি বিরোধীদল। ক্ষমতাসীন দলের ইচ্ছায় মৃদু আপত্তি সত্তে¡ও ১৪ দলের সঙ্গীরা বিরোধী দলের দায়িত্ব পালন করবে। সংসদে তারা বিরোধীতা ছাড়া আর সব কাজই করবেন। কেউ প্রতিপক্ষ নয় সবাই থাকবেন একপক্ষে। পুরনো দৃষ্টান্ত যেন একঘেয়ে না লাগে সে কারণে নতুন কিছু চমক থাকলেও বিরোধীদলের ভুমিকা দেখে জনগণ নিশ্চয়ই আমোদ পাবেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত