প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদা জিয়ার মুক্তির সমাবেশে অনুমতি পাইনি, কর্মসূচি সামনে আরো আসবে:আহমদ আযম খান

শাহানুজ্জামান টিটু : আজ আমরা একটা সমাবেশ ডেকেছি। সমাবেশ সামনে আরো আসবে। কর্মসূচিতে অনুমতি না দেয়া বা কর্মসূচি করতে না দেয়া, এই ধরনের কর্তৃত্ববাদ কোনো দেশে নেই। অত্যন্ত নৃশংসতম নিষ্ঠুরতা, গণতান্ত্রিক কর্মসূচি পালন করতে দেবে না। এটা হতে পারে না। অপেক্ষা করুন, সময় আসবে। জনগণকে আমরা ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছি। জনগণকে যদি ঐক্যবদ্ধ করতে না পারতাম, তাহলে তারা দিনের ভোট রাতে করতো না। খালেদা জিয়ার কারাবন্দির এক বছর পূর্তিতে এভাবেই প্রতিক্রিয়া জানালেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমদ আযম খান।
আপনারা কি শুধু আইনী লড়াইয়ের মধ্যে তার মুক্তির বিষয়টি সীমাবদ্ধ রাখতে চান? না, রাজনৈতিক কর্মসূচির মাধ্যমে আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে চান?

জবাবে আহমদ আযম বলেন, শুধু রাজনৈতিক কারণে, প্রতিহিংসা চরিতার্থ করবার কারণে তাকে অসংখ্য মিথ্যা মামলায় আটক করে এবং ফরমায়েশী রায়ে সাজা দিয়ে এই ৭৪ উর্ধ্ব নেত্রীকে যেভাবে জেলে পুরে রাখা হয়েছে, এটা গ্রহণযোগ্য নয়। এতে থেকে বোঝা যায়, এদেশে গণতন্ত্র নেই, আইনের শাসন নেই। যদি আইনের শাসন থাকতো তাহলে তিনি অনেক আগেই এই ধরনের গায়েবি, ভুয়া মামলায় জামিন পেতেন এবং ফরমায়েশি সাজা হতো না।

বিএনপির এই নেতা বলেন, তার মুক্তির জন্য একদিকে আইনী শাসন না থাকা সত্তে¡ও আইনী লড়াইয়ে রত আছি। আমরা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছি। আরেকদিকে রাজনৈতিক লড়াইয়ে আছি। তার মুক্তির জন্য ইতিমধ্যে আমরা অনেক কর্মসূচি দিয়েছি এবং যতোদিন পর্যন্ত তাকে মুক্ত করতে না পারবো ততোদিন তার মুক্তির জন্য আইনী পথ ও রাজপথের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

ভোটের আগে ও ভোটের পর আমরা দেখছি খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বিএনপির থেকে দৃশ্যমান কোনো কর্মসূচি নেই, এটা বিএনপির ব্যর্থতা না স্থবিরতা?

জবাবে আহমদ আযম বলেন, এখানে কোনো স্থবিরতার বিষয় নেই। দেখুন একটা সংকট চলছে। রাষ্ট্র ও কর্তৃত্ববাদীদের তৈরি করা সংকট। রাষ্ট্রের সংকটের ভেতরেও আমরা যেহেতু রাষ্ট্রের জনগণ, রাষ্ট্রের নাগরিক আমরাও সেই সংকটের মধ্যেই আছি। তবে বিএনপির মধ্যে সংকট নেই।

তিনি বলেন, যেখানে ৪০ লক্ষ নেতাকর্মীর নামে মামলা ঝুলছে সেখানে আবারো অনুমতি ছাড়া মাঠে নামলে আবারো ১০ হাজার নাশকতা মামলা, ১০ হাজার মানুষ নিঃস্ব হয়ে যাক, কারাগারে যাক এটা আমরা সেটা চাই না। কারণ যেকোন আন্দোলনকে তারা নাশকতার আন্দোলন বানিয়ে ফেলে।
তাহলে কি ধরে নেবো আপনারা মামলার ভয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে নামছেন নাএ প্রশ্নের জবাবে আহমদ আযম বলেন, না না তা মোটেও না। আমাদের বিরুদ্ধে যে নাশকতার তকমা লাগানো হয়েছে। আমরা নাশকতার রাজনীতি করি না, জঙ্গি রাজনীতি করি না। মূলত এগুলোর পরিকল্পনাকারী সরকার। তাদের পরিকল্পনার রসদ হতে চাই না। কৌশলের কারণেই আমরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনে যতোক্ষণ না আমাদের অনুমতি না দেয়, ততোক্ষণ পর্যন্ত আমরা নামবো না। কিন্তু আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত