প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে সাড়ে ৭ কোটি টাকা না পেয়ে দিশেহারা আখ চাষীরা

‌মো.সাদ্দাম হো‌সেন, ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁও সুগার মিলে আখ সরবরাহ করে আখের টাকা পাচ্ছেনা চাষিরা। এতে মিলের ৫ হাজার চাষি পরিবার পরিজন নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে‌ছে। আখের মূল্য পরিশোধের দাবিতে আন্দোলনে নেমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারক লিপি দিয়ে ৭ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে কৃষকরা। জেলা প্রশাসন কেএম কামরুজ্জামান সেলিম বলছেন, আখচাষিদের স্মারক লিপি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো ছাড়াও, দ্রুত আখের মূল্য পরিশোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চি‌নি কল সু‌ত্রে জানা গে‌ছে, জেলার সুগার মিলের ৭টি সাবজোনের ২১ টি কেন্দ্রে ৫ হাজার চাষী আখ সরবরাহ করে। ১৫ ডিসেম্বরের পর আখের দাম পরিশোধ করেনি মিল কর্তৃপক্ষ। এতে সাড়ে ৭ কোটি টাকা পাওনা আখ চাষিদের। মিল কর্তৃপক্ষের কাছে আখের মুল্য পেতে হন্যে হয়ে ঘুরছে চাষিরা। টাকা বকেয়া থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর দিন যাপন করছে চাষিরা। তাই আখের মূল্য পেতে আন্দোলনে নেমেছে আখ চাষিরা। সুগার মিলের প্রশাসনিক ভবন ঘেরাও, প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল করছে চাষিরা।

গত মঙ্গলবার আখ সরবরাহ করেও টাকা না পাওয়ায় চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো.আব্দুস শাহী (এমডি)কে অবরুদ্ধ করেন বিক্ষুদ্ধ চাষিরা । প্রায় তিন ঘন্টা কারখানা ব্যবস্থাপকের কার্যালয়ে অবরুদ্ধের পর মুক্ত হন চিনি কলের এই র্শীষকর্মকর্তা।

চাষিদের অভিযোগ, আখ সরবরাহ করে সময় মতো টাকা পাচ্ছেন না তারা। তার ওপর চাষের উপকরণ ও উন্নত জাতের বীজ সরবরাহের অভাবসহ নানা কারণে আখের আবাদ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন তারা। আখের জমিতে চাষ হচ্ছে গম-ভুট্টা ও সবজিসহ লাভজনক ফসল।

অবিলম্বে আখের দাম পরিশোধ করতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারক লিপি দেয় আখ চাষি সমিতির নেতারা। ৭ দিনের মধ্যে আখের দাম পরিশোধ করা না হলে বৃহত্তর কর্মসুচির হুশিয়ারী দেন সমিতির নেতারা।

আখ চাষিদের অভিযোগ, আখ সরবরাহ করে সময় মতো টাকা দিচ্ছেনা মিল কর্তৃপক্ষ। তার উপর আখচাষের উপকরণ ও উন্নত জাতের বীজ সরবরাহের অভাবসহ নানা কারণে আখের আবাদ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচেছ তারা।

ঠাকুরগাঁও সুগার মিল ব্যবস্থাপনা প‌রিচালক মো.আব্দুস শাহী ব‌লেন, চলতি মাড়াই মৌসুমে এ পর্যন্ত ৫৫ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ২ হাজার ৭শ১০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদন হয়েছে। আর গেল মাড়াই মৌসুমের ৪ হাজার মে.টন চিনি অবিক্রিত রয়েছে। তাই চাষিদের সরবরাহ করা আখের দাম পরিশোধে হিমসিম খেতে হচ্ছে।

তবে জেলা প্রশাসক আশ্বাস দি‌য়ে বলছেন, চাষিদের স্মারক লিপি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানোর পাশাপাশি, দ্রুত আখের দাম পরিশোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চিনিকলে আখের সংকট মোকাবিলায় চাষিদের আখ রোপনে উদ্ধুদ্ধ করেছিল সরকার। তাই চাষিদের পাশাপাশি মিলের শ্রমিক কর্মচারিরাও আখ চাষে নেমে পড়েন। তাই সুগার মিলকে বাঁচাতে সরকার আখ চাষিদের পাওনা দ্রুত বুঝিয়ে দেবে এমন দাবি সচেতন মহলের।

সর্বাধিক পঠিত