প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ফেসবুক ব্যবহারে সতর্কবার্তা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের

কামরুল হাসান : প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ফেসবুকের মতো সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে সতর্ক করে একটি নির্দেশনা জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে শিক্ষকদের অনেক মন্তব্য বা সমালোচনা দেখা গেছে, যা সরকারি নীতিবিরোধী। তাই প্রাথমিক শিক্ষা তথা সরকারের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিমূলক স্ট্যাটাস প্রদান বা শেয়ার করার ব্যাপারে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সতর্ক করে দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। বিবিসি

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ইদানীং ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষা সম্পর্কে নেতিবাচক স্ট্যাটাস ও বিভিন্ন অপপ্রচারমূলক তথ্য প্রদান করা হচ্ছে, যা সরকারি প্রতিষ্ঠানে সামাজিকমাধ্যম ব্যবহার সংক্রান্ত নির্দেশিকা, ২০১৬ এর পরিপন্থী। এ ধরনের নেতিবাচক মন্তব্য ও অপপ্রচারমূলক স্ট্যাটাস প্রচার এবং শেয়ার করা প্রাথমিক শিক্ষা তথা সরকারের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে বিভ্রান্তি তৈরি হতে পারে। এ ধরণের কার্যক্রম কোনক্রমেই গ্রহণযোগ্য নয়।

অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক সোহেল আহমেদ জানান, অনেক সময় দেখা যায়, সরকারের নীতির বিপক্ষে কেউ কেউ স্ট্যাটাস দিচ্ছেন। এ ব্যাপারে ক্যাবিনেটের একটি সার্কুলারও আছে। তারপরেও দেখা যায়, শিক্ষকরা বুঝে না বুঝে অনেক রকম মন্তব্য করছেন। তাই তাদেরকে সতর্ক করে দেয়া হলো। কেউ এই নির্দেশনা ভঙ্গ করলে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

সরকারি চাকুরীজীবীদের সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের একটি নীতিমালা জারি করা হয় ২০১৬ সালে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা ওই নির্দেশিকায় ব্লগ, মাইক্রোব্লগসহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও নেটওয়ার্ক এবং ভিডিও শেয়ারিং সাইট অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

ব্যক্তিগত একাউন্ট পরিচালনার বিষয়ে সরকারি কর্মচারিদের দায়িত্বশীল নাগরিকসুলভ আচরণ করা, বক্তব্য ও বন্ধু নির্বাচনে সতর্কতা অবলম্বন, নিজস্ব পোস্টে দেয়া তথ্য-উপাত্তের যথার্থতা যাচাই, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেয়া তথ্য, ছবি, বা ভিডিও গুরুত্বের সঙ্গে বাছাই করাসহ বেশ কয়েকটি বিষয় উল্লেখ করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত