প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনঘেঁষা বাণিজ্য নীতি পরিবর্তনের কথা ভাবছে জার্মানি, মেরকেলকে উষ্ণ অভ্যর্থনা অ্যাবের

নূর মাজিদ : বিগত দুই দশক ধরে চীনকেন্দ্রিক অর্থনৈতিক নীতি জার্মান-চীনা পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য স¤পর্ককে শক্তিশালী করেছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দেশটির বাণিজ্য বিরোধের কারণে জার্মানি তার চীনঘেঁষা নীতি পরিবর্তনের কথা ভাবছে। এই কারণেই গত সোমবার জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল জাপান সফরে গিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ আলোচনায় অংশ নিয়েছেন। দুই দেশের ঐতিহাসিক স¤পর্কের প্রেক্ষাপটে এই আলোচনার পরিবেশ উষ্ণ ও সৌহার্দপূর্ণ ছিলো বলেই দেশটির গণমাধ্যম জানিয়েছে। নিক্কেই এশিয়ান রিভ্যিউ

গত তিন বছরে জাপান সফর করেননি মেরকেল। তবে সোমবার জাপান সফরে দেশটির সঙ্গে বৈশ্বিক মুক্তবাণিজ্য পরিবেশ বজায় রাখতে জাপান-জার্মান মিত্রতার আলোচনা প্রাধান্য পায়। যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রশাসন চীনের সঙ্গে উৎপাদন প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ে যে বাণিজ্য সংরক্ষণবাদি নীতি নিয়েছে তা বৈশ্বিক মুক্তবাণিজ্যের পরিবেশ ব্যাহত করছে বলে ইতোপূর্বে জাপান ও জার্মানি উভয়েই নিজ নিজ উদ্বেগ প্রকাশ করে। এই কারণেই সোমবারের আলোচনা উভয় দেশের জন্য আরো গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। কারণ, মার্কিন মিত্রতা বজায় রাখতে চীনকে এড়িয়েই বিকল্প মুক্ত বাণিজ্যের মডেল চালু করতে চায় জাপান। এইলক্ষ্যে ওয়াশিংটনের ওপর বন্ধুত্বপূর্ণ চাপ প্রয়োগে জার্মান মিত্রতা জাপানের অবস্থানকে শক্তিশালী করবে।

বৈঠকের শুরুতেই জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিঞ্জো অ্যাবে জার্মান চ্যান্সেলরকে বলেন, আপনি এত দূরত্ব পারি দিয়ে জাপান আসায় আমি সত্যি আনন্দিত। উল্লেখ্য, ২০০৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাণিজ্যিক স¤পর্কের কারণে মেরকেল ১১ বার চীন সফর করেন। একই সময় তিনি মাত্র পাঁচবার জাপান সফরে আসেন। ফলে বৈঠকে অ্যাবের অভিনন্দন মেরকেলের কানে একটি চতুর কূটনীতিক বার্তা দিয়েছে। যা অনেকটা এমন, দ্বিপাক্ষিক স¤পর্কের ভিত্তি আরো মজবুত করতে জাপান ও জার্মানির মাঝে রাষ্ট্রীয় সফরের গুরুত্ব বাড়ছে।

গতকাল মঙ্গলবার নিজ দেশে ফিরে গেলেও মেরকেল তার সফরে জাপানি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বেশকিছু এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা করেছেন। ওয়াশিংটনের চাপে জার্মানি যখন চীনের সঙ্গে নিজেদের অর্থনৈতিক স¤পর্ক পুর্নমূল্যায়ন করছে ঠিক সেই সময়েই জাপান সফর করলেন মেরেকেল। বর্তমানে ৫ হাজার ২শ জার্মান কো¤পানি চীনে ব্যবসায় পরিচালনা করছে, যারা দেশটিতে প্রায় ১০ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত