প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্ত্রী বিসিএস ক্যাডার, বেকার স্বামীর ‘আত্মহত্যা’

মির্জাপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের করটিয়া সরকারি সা’দত বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষিকা আইভি আক্তারের স্বামী মনিরুল ইসলাম মনির (৩০) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার পৌর সদরের বংশাই রোডস্থ বাইমহাটি বাজারের মো. কয়েদ আলীর (শ্বশুড় বাড়ি) ৩ তলা ভবনের একটি রুমে গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।

মনিরুলের স্ত্রী আইভি আক্তার টাঙ্গাইলের সরকারি সাদত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক। আর মনিরুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাস করে বেকার। এই দম্পতির মুসা নামের পাঁচ বছরের ছেলে ও আরিশা নামের ছয়মাস বয়সী এক মেয়ে সন্তান রয়েছে।

আইভির পরিবার সূত্রে জানা যায়, মির্জাপুর সদরের বংশাই রোডের বাড়িতে আইভি তার স্বামী-সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন। মনিরুলের বাড়ি যশোরের মনিরামপুর উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামে হলেও নিজের চাকরি না থাকায় ও স্ত্রীর চাকরির সুবাদে শ্বশুরবাড়ি থাকতেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাস করে বেশ কয়েকবার বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন মনিরুল। সর্বশেষ প্রিলিতে অংশগ্রহণ করারও কথা ছিল তার। কিন্তু ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় সেই পরীক্ষা দিতে পারেননি তিনি।

আইভির পরিবারের সদস্যরা জানান, আজ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হঠাৎ মনিরুল নিজের ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। এ সময় মনিরুলের স্ত্রী ও শাশুড়ি তা দেখে ফেলেন। পরে তারা দরজায় অনেক্ষণ ধাক্কাধাক্কি করলেও মনিরুল দরজা খোলেননি।

পরে তারা চিৎকার শুরু করলে বাড়ির নিচ থেকে কয়েকজন উপরে উঠে আসেন। এরপর তারা দরজা ভেঙে মনিরুলের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান তারা। পরে মির্জাপুর থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে, হতাশার কারণে মনিরুল আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন আসার পর বাকি তথ্য জানা যাবে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত