প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যাদের ভুলের কারণে জাহালাম তিন বছর জেল খেটেছে, তাদের বিচারের আওতায় আনা উচিত বলে মনে করেন নূর খান লিটন

খায়রুল আলম : মানবাধিকার কর্মী নূর খান লিটন বলেছেন, একজন নিরপরাধ ব্যক্তি তিন বছর  সাজা ভোগ করলেন, এ ক্ষেত্রে তদন্তকারী, দুদুক এবং সংশ্লিষ্ট অন্য যাদের ত্রুটির কারণে, ভুলের কারণে মানুষটিকে কারাভোগ করতে হলো, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার মধ্য দিয়েই ভবিষ্যতে এ ভুলের পুনরাবৃত্তি রোধ করা সম্ভব।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, এমন ঘটনা আমরা আগেও দেখেছি। কিন্তু তার কোনো সঠিক সমাধান দেখিনি। তাই বারবার এমন ঘটনা ঘটছে। জাহালাম তার তিনটি বছর অন্ধকারে কাটিয়েছে। তার পরিবার থেকে দূরে ছিলো। অপরাধ না করেও সাজা খেটেছে। তার এ সময়গুলোকে হয়তো আর ফিরিয়ে দেয়া সম্ভব নয়। তবে যাদের জন্য বিনা অপরাধে জেলে থাকতে হয়েছে, তাদের সাজা হলে ভবিষ্যতে আর  এমন হবে না বলে আমার মনে হয়। আমরা আর কোনো জাহালামকে কারাগারে দেখতে চাই না। যে কোনো লোককে সন্দেহমূলক ধরে নেয়া হলে তাকে আদালতের মাধ্যমে দোষী নাকি নির্দোষী সেটা প্রমাণ করতে হবে অল্প সময়ের মধ্যে, তাহলে বিনা অরপাধে কেউ জেল খাটবে না। আর না হলে শুধু কারাগার থেকে মুক্তি দিলেই এ ধরনের ঘটনা থেকে আমরা বেরিয়ে আসতে পারবো না বা এমন মানুষগুলোকে আমরা রক্ষা করতে পারবো না। এ ধরনের ঘটনা যাদের দক্ষতার অভাবে ঘটেছে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে বিচার করা উচিত। সেটি পুলিশ কর্মকর্তা হোক, দুদুক কর্মকর্তা হোক অথবা বিচার বিভাগের কারো ত্রুটির কারণে হোক , তাকে বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে বলে আমি মনে করি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত