প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আজ বিশ্ব ক্যান্সার দিবস

সাজিয়া আক্তার : ‘আমি আছি, আমি থাকবো-ক্যান্সার লড়াইয়ের সাথে’ এই স্লোগানে আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব ক্যান্সার দিবস। নানা আয়োজনে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি। সোমবার সকালে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আয়োজন হয়েছে শোভাযাত্রা।সূত্র : ডিবিসি টিভি

দেশে এখন প্রায় ১৫ লাখ ক্যান্সার রোগী আছেন, নতুন করে প্রতিবছর যুক্ত হচ্ছেন দেড় লাখের বেশি রোগী। এদের মাত্র ৪০ ভাগ চিকিৎসা সেবা পান, বাকি ৬০ ভাগই রয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসার বাইরে। মরণব্যাধি ক্যান্সার মোকাবেলায় সরকারকে দ্রুত সমন্বিত পরিকল্পনা নিতে তাগিদ দিয়েছেন, ক্যান্সার বিশেষজ্ঞরা।

বিভাগীয় শহরে ক্যান্সারের চিকিৎসা অপ্রতুল, তাই প্রতিদিনই দেশের নানা প্রান্ত থেকে রাজধানীর ক্যান্সার হাসপাতালে আসছেন রোগীরা। দেশের এই একমাত্র বিশেষায়িত ক্যান্সার হাসপাতালের তিনশ রোগীকে সেবা দেয়ার সক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু রোগীর চাপে এই সংখ্যা দিনে গড়ে ১২শ ছাড়িয়ে যায়।

গবেষণা সংস্থা গ্লোবোক্যানের ২০১৮ সালের তথ্য মতে, সারাবিশ্বে বছরে ৯৬ লাখ মানুষ ক্যান্সারে মারা যায়। আর প্রতিবছর নতুন করে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন ১ কোটি ৮১ লাখ মানুষ। আর বাংলাদেশে প্রতিবছর ১ লাখ ৫০ হাজার ৭৮১ জন রোগী ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। এই রোগে মারা যান ১ লাখ ৮ হাজার একশ ৩৭ জন।

জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোয়াররফ হোসেন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সম্পর্কে জানান, ‘নতুন এবং পুরাতন মিলিয়ে প্রায় ১৫ লাখ ক্যান্সার রোগী আছে এ মুহুর্তে।

ক্যান্সার রোগতত্ত্ব বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম বলেন, যদি প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়ে এবং সঠিক চিকিৎসা দেওয়া যায়, তাহলে যত ধরনের ক্যান্সার আছে তার এক-তৃতীয়াংশ রোগী সম্পুর্ন সুস্থ হয়ে যায়। আবার জীবন যাপনে কিছু পরিবর্তন এনে এক-তৃতীয়াংশ ক্যান্সার প্রতিরোধ করা যায়।’

দেশে বিদ্যমান চিকিৎসা ব্যবস্থায় ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীদের অর্ধেকের বেশি চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত। আহছানিয়া মিশন ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতাল পরিচালক অধ্যাপক ডা. কামরুজ্জামান চৌধুরী দেশে ক্যান্সার চিকিৎসা কেন্দ্রের সংকটের কথা তুলে ধরে বলেন, ‘আমাদের ১৫০ থেকে ১৬০টি ক্যান্সার সেন্টার থাকা উচিত। এবং প্রতিটি সেন্টারে দু’টি করে রেডিয়েশন মেশিন থাকতে হবে। আর আমাদের দেশে রয়েছে মাত্র ২০টির মত রেডিওথেরাপি সম্বলিত ক্যান্সার সেন্টার।

তারা বলছেন, ব্যয়বহুল এবং দীর্ঘমেয়াদী বলে ক্যান্সারে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে হলে সরকারকে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিতে হবে।

দিবসটি পালন করেছে মহাখালী ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট। শোভাযাত্রার পাশাপাশি রোগীদের অংশগ্রহণে ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণের আয়োজন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত