প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শরণখোলায় প্রাথমিক শিক্ষক সংকট প্রকট, পাঠদান ব্যাহত!

নইন আবু নাঈম, শরনখোলা : জেলার শরণখোলা উপজেলার রাজাপুর ৩৫ নং ইয়াছিন মেমোরিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রকট শিক্ষক সংকটে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে মো. আব্দুল আউয়াল হাওলাদার ওই স্কুলে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। দুই বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে থেকে একাই ৬ টি ক্লাসের দেড় শতাদিকের উপড়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান চালিয়ে আসছেন তিনি। তাই কোনমতে ঝিমানো শিক্ষা নিয়ে প্রাথমিক পাড় হচ্ছেন সেখানকার শিক্ষার্থীরা।

বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত সমস্যা না থাকলেও শিক্ষক স্বল্পতার কারণে গুণগত ও মানসম্মত শিক্ষাদান করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

প্রধান শিক্ষক আব্দুল আউয়াল জানান, এই স্কুলে দুই বছর ধরে আমি একাই আছি, তাই ছাত্র ছাত্রীদের ঠিকমত শিক্ষা দিতে পারছি না। স্কুলে বর্তমানে দেড় শতাদিকের উপরে ছাত্র ছাত্রী আছে, তা আমার একার পক্ষে ৬ টি ক্লাস সামলাতে খুব সমস্যা হচ্ছে। সুন্দরবন সংলগ্ন পাড়াগাঁয়ে অবস্থিত বিদ্যালয়টিতে কোন শিক্ষক এসে দুই মাসের বেশি থাকেন না ।

বর্তমান সরকারের অগ্রযাত্রার এযুগে সেখানকার মানুষের জীবনমানের উন্নতি হলেও হয়নি ৩৫ নং ইয়াছিন মেমোরিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন। অভিভাবকরা বলেন, কাছাকাছি কয়েকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে যেখানে ৬০-৭০ জন শিক্ষার্থীর বিপরীতে ১০-১১ জন শিক্ষক রয়েছেন। অথচ ইয়াছিন মেমোরিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন শিক্ষক দিয়ে পাঠদান চালানো হচ্ছে।

স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. কামাল হোসেন বলেন,আমার স্কুলে শিক্ষক থাকার কথা ছিল ছয়জন সেখানে রয়েছে একজন। স্কুলটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে হওয়ার কারণে এবং রাস্তা কাচা বিধায় এখানে শিক্ষক থাকেনা। সমস্ত শিক্ষক শিক্ষা অফিসের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সাথে যোগসাজশ বদলী হয়ে অন্য যায়গায় চলে যায়। যার কারণে একজন শিক্ষক দিয়ে স্কুল চালানো সম্ভব হয় না। তাই সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কাছে আমার প্রার্থনা স্বল্প সময়ের মধ্যে আমার এই স্কুলে যেন পর্যাপ্ত শিক্ষকের ব্যবস্থা করা হয়।

উপজেলা শিক্ষা আফিসার মোহাম্মাদ আশরাফুল ইসলাম বলেন, ওই স্কুলটা সদ্য জাতীয়করণকৃত। ওই এলাকায় নতুন করে কোন নিয়োগ পায়নি। এমন কি নিয়োগ নাই। নিয়োগ সব খোন্তাকাটার এইদিকে। দুইবার ডেপুটেশন দেয়া হয়েছে, পদন্নোতি বা সরাসরি নিয়োগের জন্য। কিন্তু ওখানকার মানুষের এ নিয়ে কোন আগ্রহ নেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত