প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথম ধাপে ভোট ১০ মার্চ
তফসিল ৮৭ উপজেলার

যুগান্তর : প্রথম ধাপে দেশের ৮৭টি উপজেলায় আগামী ১০ মার্চ ভোট গ্রহণের দিন নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১১ ফেব্রুয়ারি, যাচাই-বাছাই ১২ ফেব্রুয়ারি ও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৯ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করা হয়েছে। রোববার কমিশন সভায় এ তফসিল অনুমোদন করা হয়।

সভা শেষে এসব তথ্য সাংবাদিকদের জানান ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন, পাঁচ ধাপে সারা দেশের উপজেলাগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেবে ইসি। এ নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশ নেবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি। উপজেলা পরিষদ প্রতিষ্ঠার পর এবার পঞ্চমবারের মতো নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। যদিও বিএনপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ কয়েকটি রাজনৈতিক দল এ নির্বাচনে অংশ নেবে না বলে আগেই জানিয়েছে। অপরদিকে আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন দিলেও ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হবে না। এ দুটি পদ ‘উন্মুক্ত’ রাখার কথা জানিয়েছে দলটি।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব বলেছেন, আইন অনুযায়ী, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হবে। আমরা যতটুকু জেনেছি, আওয়ামী লীগ ভাইস চেয়ারম্যান পদে কাউকে মনোনয়ন দেবে না। এটা উন্মুক্ত রাখবে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, এ নির্বাচনে অংশ না নেয়ার বিষয়ে বিএনপি ইসিকে কিছুই জানায়নি।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে রোববার বিকাল ৩টা থেকে প্রায় ৫টা পর্যন্ত চলে কমিশন সভা। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় অন্যান্য কমিশনার ও ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন। ইসি সচিব জানিয়েছেন, প্রথম ধাপে রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও রাজশাহী বিভাগের ১২টি জেলার ৮৭টি উপজেলায় ভোট হবে। পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, লালমনিরহাট, জামালপুর, জয়পুরহাট ও রাজশাহী জেলার সব কটি উপজেলায় ১০ মার্চ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বাকি জেলাগুলোর মধ্যে আটপাড়া উপজেলা বাদে নেত্রকোনা, জগন্নাথপুর বাদে সুনামগঞ্জ, শায়েস্তাগঞ্জ বাদে হবিগঞ্জ, কামারখন্দ বাদে সিরাজগঞ্জ ও নলডাঙ্গা বাদে নাটোর জেলার সব কটি উপজেলায় ওইদিন ভোট হবে। এসব জেলার যে ৫টি উপজেলা বাদ পড়েছে সেগুলো নির্বাচনযোগ্য হয়নি।

তিনি আরও জানান, উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানরা এ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাইলে তাদেরকে পদত্যাগ করতে হবে। এমনকি স্থানীয় সরকারের অন্যান্য প্রতিষ্ঠান যেমন সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিরা উপজেলা নির্বাচনের যে কোনো পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে তাদেরও পদত্যাগ করে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে হবে। এ সময় সচিবের পাশে থাকা অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান উপজেলা পরিষদ আইন, ১৯৯৮-এর ৮(২) ধারা উদ্ধৃত করে বলেন, এ ধারামতে জাতীয় সংসদ সদস্য ও অন্য কোনো স্থানীয় কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বা সদস্য হলে পদত্যাগ না করে উপজেলা নির্বাচনের চেয়ারম্যানসহ তিনটি পদেরই যোগ্য হবেন না।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, প্রথম ধাপের তফসিল ঘোষণা করা হলেও বাকি চার ধাপের খসড়া তফসিল খসড়া প্রস্তুত করেছে কমিশন সচিবালয়। এতে দ্বিতীয় ধাপে তফসিল ১০ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা, মনোয়নপত্র দাখিল ১৯ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৮ ফেব্রুয়ারি এবং ভোট গ্রহণ ১৮ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে। তৃতীয় ধাপে তফসিল ১৬ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা, মনোনয়নপত্র দাখিল ২৬ ফেব্রুয়ারি, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৫ মার্চ ও ভোট গ্রহণ ২৪ মার্চ। চতুর্থ ধাপে তফসিল ২০ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা, মনোনয়নপত্র দাখিল ৪ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ১২ মার্চ ও ভোট গ্রহণ ৩১ মার্চ। সর্বশেষ পঞ্চম ধাপের তফসিল ১২ মে ঘোষণা, মনোনয়নপত্র দাখিল ২১ মে, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ মে ও ভোট গ্রহণ ১৮ জুন নির্ধারণ করা হয়েছে।

আরও জানা গেছে, সভায় জানানো হয়- রোববার উপজেলা নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার সংক্রান্ত বিধিমালা আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে। এটির এসআরও জারি না হওয়া পর্যন্ত উপজেলা নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করে ভোট গ্রহণ সম্ভব হচ্ছে না। এ ছাড়া নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের প্রস্তুতিরও বিষয় রয়েছে। এসব বিবেচনায় প্রথম ধাপের নির্বাচনে এ মেশিনে ভোট গ্রহণ নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

জানা গেছে, ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছর ৪৬০টি উপজেলায় এই নির্বাচন হয়। এরপর ১৯৯০ সালে দ্বিতীয়বারের মতো উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই বছরও ৪৬০টি উপজেলায় এ নির্বাচন হয়। ২০০৯ সালে তৃতীয়বার ৪৮০টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

কমিশন সভা সূত্রে জানা গেছে, বিভাগ অনুযায়ী উপজেলা নির্বাচন করার পরিকল্পনা ছিল ইসির। এ বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয় যে, একদিনে একই বিভাগের সব কটি উপজেলায় ভোট গ্রহণ করতে গেলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েনে সমস্যা হবে। সে ক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী বিভাগের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিতে হবে। এ বিবেচনায় একই বিভাগের কয়েকটি জেলায় নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। একই বিভাগের কয়েকটি জেলায় একইদিন ভোট হলে ওই বিভাগের বাকি জেলার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনী জেলায় দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। এসব বিবেচনায় একই বিভাগে কয়েক ধাপে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পারিপার্শ্বিক সব বিবেচনায় রাজশাহী জেলার নির্বাচন তৃতীয় ধাপ থেকে সরিয়ে প্রথম ধাপে নিয়ে আসা হয়েছে। অপরদিকে পার্বত্য তিন জেলার নির্বাচন প্রথম ধাপ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর অনুষ্ঠেয় উপজেলা নির্বাচনে কয়েকটি রাজনৈতিক দলের অংশ না নেয়ার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ইসি সচিব বলেন, দলীয় প্রতীকে ভোট হলেও এটা স্থানীয় সরকার নির্বাচন। আমরা আশা করব, সব দল নির্বাচনে অংশ নেবে। তবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা বা না-করা রাজনৈতিক দলের অভিপ্রায়ের মধ্যে পড়ে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু, অংশগ্রহণ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হয়েছে। জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনেক বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে। যত বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে, তত বেশি সুষ্ঠু হবে। আমরা আশা করি, সব নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। আমাদের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়। সবার সহযোগিতায় উপজেলা নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয় সেটাই আশা করব।

প্রথম ধাপে যেসব উপজেলায় ভোট : প্রথম ধাপে আগামী ১০ মার্চ যেসব উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে- পঞ্চগড় জেলার সদর, আটোয়ারী, বোদা, দেবীগঞ্জ ও তেঁতুলিয়া। কুড়িগ্রাম জেলার সদর, ভুরুঙ্গামারী, ফুলবাড়ী, উলিপুর, নাগেশ্বরী, রাজারহাট, রাজিবপুর, চিলমারী ও রৌমারী। নীলফামারী জেলার সদর, ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ। লালমনিরহাট জেলার সদর, পাটগ্রাম, হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ ও আদিতমারী।

জামালপুর সদর, সরিষাবাড়ী, মেলান্দহ, ইসলামপুর, বকশীগঞ্জ, দেওয়ানগঞ্জ ও মাদারগঞ্জ। নেত্রকোনা সদর বারহাট্টা, দুর্গাপুর, খালিয়াজুরী, কলমাকান্দা, কেন্দুয়া, মদন, মোহনগঞ্জ, পূর্বধলা। সুনামগঞ্জ সদর, ছাতক, দোয়ারাবাজার, জামালগঞ্জ, শাল্লা, ধর্মপাশা, বিশ্বম্ভবপুর ও তাহিরপুর। হবিগঞ্জ সদর, বাহুবল, মাধবপুর, চুনারুঘাট, নবীগঞ্জ, আজমিরীগঞ্জ, বানিয়াচং ও লাখাই। সিরাজগঞ্জ সদর, বেলকুচি, চৌহালী কাজিপুর, রায়গঞ্জ, শাহজাদপুর, তাড়াশ ও উল্লাপাড়া। জয়পুরহাট জেলার সদর, পাঁচবিবি, আক্কেলপুর, কালাই ও ক্ষেতলাল। নাটোর সদর, বাগাতিপাড়া, গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম, লালপুর ও সিংড়া। রাজশাহীর তানোর, গোদাগাড়ী, পবা, মোহনপুর, বাগমারা, পুঠিয়া, দুর্গাপুর, চারঘাট ও বাঘা।

২য় পর্যায়ে ১৮ মার্চ ভোটগ্রহণ ও উপজেলার তালিকা (সম্ভাব্য) : ঠাকুরগাঁও সদর, বালিয়াডাঙ্গী, রানীশংকৈল, পীরগঞ্জ, হরিপুর, গঙ্গাচড়া, তারাগঞ্জ, বদরগঞ্জ, কাউনিয়া, পীরগাছা, পীরগঞ্জ, গোবিন্দগঞ্জ, সাঘাটা, পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা সদর, সাদুল্লাপুর, ফুলছড়ি, বীরগঞ্জ, কাহারোল, বিরল, বোচাগঞ্জ, দিনাজপুর সদর, খানসামা, চিরিরবন্দর, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ী, নবাবগঞ্জ, বিরামপুর, হাকিমপুর, ঘোড়াঘাট, সদর, আদমদীঘি, দুপচাঁচিয়া, ধুনট, কাহালু, গাবতলী, নন্দীগ্রাম, সারিয়াকান্দি, শাজাহানপুর, শেরপুর, শিবগঞ্জ, সোনাতলা, রানীনগর, মহাদেবপুর, নিয়ামতপুর, সাপাহার, পত্নীতলা, বদলগাছী, নওগাঁ সদর, আত্রাই, পোরশা, ধামইরহাট, মান্দা, সদর, বাগাতিপাড়া, গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম, লালপুর, সিংড়া, কুষ্টিয়া সদর, ভেড়ামারা, কুমারখালী, মিরপুর, খোকসা, দৌলতপুর, শার্শা, ঝিকরগাছা, চৌগাছা, যশোর সদর, বাঘারপাড়া, অভয়নগর, মনিরামপুর, কেশবপুর, দীঘলিয়া, কয়রা, ডুমুরিয়া, পাইকগাছা, রুপসা, তেরখাদা, ফুলতলা, বটিয়াঘাটা, দাকোপ, মেহেরপুর সদর, মুজিবনগর, গাংনী, রাজবাড়ী সদর, গোয়ালন্দ, পাংশা, বালিয়াকান্দি, আলফাডাঙ্গা, বোয়ালমারী, মধুখালী, নগরকান্দা, সালথা, সদর, চরভদ্রাসন, সদরপুর, ভাঙ্গা, হাতিয়া, মীরসরাই, সীতাকুণ্ড, সন্দ্বীপ, ফটিকছড়ি, রাঙ্গুনিয়া, রাউজান, হাটহাজারী।

৩য় পর্যায়ে ২৪ মার্চ ভোটগ্রহণ ও উপজেলার তালিকা (সম্ভাব্য) : চুয়াডাঙ্গা সদর, আলমডাঙ্গা, দামুড়হুদা, জীবননগর, মাগুরা সদর, শ্রীপুর, শালিখা, মহম্মদপুর, নড়াইল সদর, কালিয়া লোহাগড়া, ঝিনাইদহ সদর, শৈলকুপা, হরিণাকুণ্ডু, কালীগঞ্জ, ফকিরহাট, মোল্লাহাট, চিতলমারী, বাগেরহাট সদর, কচুয়া, রামপাল, মোংলা, মোরেলগঞ্জ, শরণখোলা, আশাশুনি, শ্যামনগর, কালীগঞ্জ, কলারোয়া, সাতক্ষীরা সদর, তালা দেবহাটা, ভোলাহাট, গোমস্তাপুর, নাচোল, শিবগঞ্জ, পুঠিয়া, দুর্গাপুর, চারঘাট, বাগা, সদর, আটঘরিয়া, বেড়া, ভাংগুড়া, চাটমোহর, ফরিদপুর, ঈশ্বরদী, সাঁথিয়া, সুজানগর, সদর, টুঙ্গিপাড়া, কোটালীপাড়া, কাশিয়ানী, মুকসুদপুর, শিবচর, কালকিনি, রাজৈর, সদর, জাজিরা, নড়িয়া, ভেদরগঞ্জ, ডামুড্যা, গোসাইরহাট, নালিতাবাড়ী, শ্রীবরদী, ঝিনাইগাতী, হালুয়াঘাট, ধোবাউড়া, ফুলপুর, গৌরীপুর, সদর, মুক্তাগাছা, ফুলবাড়ীয়া, ত্রিশাল, ঈশ্বরগঞ্জ, নান্দাইল, গফরগাঁও, ভালুকা, সিলেট সদর, বিশ্বনাথ, দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ, বালাগঞ্জ, কোম্পানীগঞ্জ, গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কানাইঘাট, জকিগঞ্জ, গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, বড়লেখা, জুড়ী, কুলাউড়া, রাজনগর, সদর, কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল, বোয়ালখালী, পটিয়া, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, লোহাগাড়া, বাঁশখালী।

৪র্থ পর্যায়ে ৩১ মার্চ ভোটগ্রহণ ও উপজেলার তালিকা (সম্ভাব্য) : বরিশাল সদর, বাকেরগঞ্জ, বাবুগঞ্জ, বানারীপাড়া, উজিরপুর, গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, মুলাদী, হিজলা, পটুয়াখালী সদর, মির্জাগঞ্জ, দুমকী, বাউফল, দশমিনা, গলাচিপা, কলাপাড়া, ভোলা সদর, দৌলতখান, বোরহানউদ্দিন, লালমোহন, তজুমদ্দিন, চরফ্যাশন, মনপুরা, বরগুনা সদর, আমতলী, বেতাগী, বামনা, পাথরঘাটা, পিরোজপুর সদর, ইন্দুরকানী, মঠবাড়ীয়া, ভাণ্ডারিয়া, কাউখালী, নেছারাবাদ, নাজিরপুর, ঝালকাঠি সদর, নলছিটি, রাজাপুর, কাঁঠালিয়া, ধনবাড়ী, মধুপুর, গোপালপুর, ভূঞাপুর, ঘাটাইল, কালিহাতী, টাঙ্গাইল সদর, দেলদুয়ার, নাগরপুর, মির্জাপুর, বাসাইল, সখীপুর, কিশোরগঞ্জ সদর, হোসেনপুর, কটিয়াদী, পাকুন্দিয়া, তাড়াইল, করিমগঞ্জ, ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম, নিকলী, বাজিতপুর, কুলিয়ারচর, ভৈরব, দোহার, নবাবগঞ্জ, কেরানীগঞ্জ, সাভার, ধামরাই, কাপাসিয়া, কালিয়াকৈর, শ্রীপুর, কালীগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ সদর, টঙ্গীবাড়ী, লৌহজং, শ্রীনগর, সিরাজদিখান, গজারিয়া, সোনারগাঁ, আড়াইহাজার, রূপগঞ্জ, নরসিংদী সদর, পলাশ, শিবপুর, মনোহরদী, বেলাব, রায়পুরা, দৌলতপুর, ঘিওর, শিবালয়, সিঙ্গাইর, হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ সদর, সাটুরিয়া, তিতাস, মুরাদনগর, দেবিদ্বার, বুড়িচং, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চান্দিনা, বরুড়া, লাকসাম, নাঙ্গলকোট, মনোহরগঞ্জ, চৌদ্দগ্রাম, মেঘনা, হোমনা, কচুয়া, মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ, চাঁদপুর সদর, ফরিদগঞ্জ, হাজীগঞ্জ শাহরাস্তি, চাটখিল, সেনবাগ, কোম্পানীগঞ্জ, কবিরহাট, সুবর্ণচর, বেগমগঞ্জ, সোনাইমুড়ী, নাসিরনগর, আশুগঞ্জ, সরাইল, সদর, আখাউড়া, কসবা, নবীনগর, ফেনী সদর, দাগনভূঞা, সোনাগাজী, ফুলগাজী, ছাগলনাইয়া, পরশুরাম, লক্ষ্মীপুর সদর, রামগঞ্জ, রায়পুর, কমলনগর, রামগতি, পেকুয়া, কুতুবদিয়া, মহেশখালী, কক্সবাজার সদর, রামু, উখিয়া, টেকনাফ।

৫ম পর্যায়ে ১৮ জুন ভোটগ্রহণ ও উপজেলার তালিকা (সম্ভাব্য) : আটপাড়া, শেরপুর সদর, নকলা, নলডাঙ্গা, সদর, কামারখন্দ, রংপুর সদর, সুন্দরগঞ্জ, মেহেন্দিগঞ্জ, রাঙ্গাবালী, তালতলী, কোটচাঁদপুর, মহেশপুর, গাজীপুর সদর, বন্দর, মাদারীপুর সদর, কালুখালী, শায়েস্তাগঞ্জ, বাঞ্ছারামপুর, বিজয়নগর, হাইমচর, আদর্শ সদর, সদর দক্ষিণ, সাতকানিয়া।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত