প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে চা-চক্রে না গিয়ে ঐক্যফ্রন্ট ভুল করেছে : মে. জে. (অব.) আবদুর রশিদ

জুয়েল খান : নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশিদ বলেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যেহেতু জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছে, সেহেতু তাদের অবশ্যই সরকারি দলের সাথে আলোচনা, সংলাপ, সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে হবে। একে অপরের মুখ দেখাদেখি বন্ধ করাটা দেশের গণতন্ত্রের জন্য মোটেও সহায়ক নয়।
এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, গণতান্ত্রিক চর্চা রক্ষা করতে হলে সংলাপের কোনো বিকল্প নেই। একইসাথে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া চা-চক্রের আমন্ত্রণে বিএনপি গেলে সরকার এবং ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে সম্প্রীতির সমৃদ্ধি বাড়তো, একে অপরের মুখ দেখতো।
তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্ট সংলাপ করতে চায় বা না চায় সেটা তাদের দলীয় বা জোটের ব্যাপার, তবে প্রধানমন্ত্রী যে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সেটা নিতান্তই চা-চক্রের আমন্ত্রণ। ঐক্যফ্রন্ট যদি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া চা-চক্রের আমন্ত্রণে যায় তাহলে সরকার এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে মতবিনিময় হতো এবং সামনাসামনি কথা বলার সুযোগ হতো। এই সুযোগই একটা সময় আলাপ-আলোচনার জন্য একটা রাস্তা খোলা রাখতো, সেই রাস্তা ধরে পরবর্তী সময়ে সংলাপ এবং আরো কিছু হওয়ার সুযোগ থাকতো।
তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যখন এ চা-চক্রের আমন্ত্রণে যাচ্ছে না, তার মানে হচ্ছে দুই দলের মধ্যে মুখ দেখাদেখি বন্ধ হওয়া। আমাদের দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতির একটা অংশ হচ্ছে সরকারি এবং বিরোধী দল কেউ কারো মুখ দেখে না। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আগে প্রধানমন্ত্রী সকল রাজনৈতিকে দলের সাথে সংলাপ করেছে এবং এটা একটা ভালো সংস্কৃতির উদাহরণ।
প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রতি বিএনপি বা ঐক্যফ্রন্টের ক্ষোভ, রাগ, অভিমান থাকতেই পারে। কিন্তু গণতন্ত্রের সহায়ক রাস্তাকে বন্ধ করা কোনো গণতান্ত্রিক দলের কাছ থেকে আমি আশা করি না। যেহেতু সবাই জাতীয় ঐক্যের কথা বলছেন, তাই সেই ধারাকে ধরে রাখার জন্য এই চা-চক্রের আমন্ত্রণে ঐক্যফ্রন্টের যাওয়া উচিত ছিলো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত