প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেটের মাঠে ইউরোপীয় ব্রোকলির চাষে সাড়া ফেলে দিয়েছেন এককৃষক

সাত্তার আজাদ, সিলেট: সিলেটে ইউরোপীয় সবজির চাষ করে সাড়া ফেলে দিয়েছেন দক্ষিণ সুরমার এক কৃষক। তিনি মাত্র দুই বিঘা জমিতে ব্রোকলি নামের এই সবজি চাষ করেন এবং ফলন ভালো হওয়াতে সকলে দৃষ্টিগোচরে আসে তার এই খেত। তাকে সহযোগিতা করতে এগিয়ে এসেছে কৃষিমন্ত্রণায়লের বিদেশে বিষমুক্ত সবজি রপ্তানি নিশ্চিত করণ প্রকল্প হটেক্স ফাউন্ডেশন। তার দেখা দেখি স্থানীয় অন্যান্য কৃষকরাও ব্রোকলি চাষে উৎসাহিত হচ্ছেন বলে জানিয়েছে সিলেটের আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

সিলেটে গত দুই বছর ধরে ইউরোপীয় সবজি ব্রোকলি চাষ হচ্ছে। শখ করে কেউ টবে, ক্ষুদ্র পরিসরে ব্রোকলি চাষ করছিলেন। সিলেটে বাণিজ্যিকভাবে এই প্রথম ব্রোকলি চাষ করলেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সৈয়দুর রহমান। তিনি দুই বিঘা জমিতে দৃষ্টিনন্দন এই সবজির চাষ করেন। তার এই খেত এখন প্রদর্শনী মাঠ হয়ে গেছে। প্রতিদিন কৃষকরা তার ব্রোকলি খেত দেখতে আসছেন। কেউ উৎপাদন পদ্ধতি জেনে নিচ্ছেন। কেউ লাভ ক্ষতির হিসেব কষছেন। সৈয়দুর রহমান জানালেন, তিনি এবার পরীক্ষামূলক এই ব্রোকলি চাষ করেছেন। ফলন ভালো। তবে সবজিটি অন্য এলাকার মত বড় হচ্ছে না। তারপরও তিনি এবার এ খেত থেকে লক্ষাধিক টাকা আয় করতে পারবেন।

সিলেটের বাজারে ব্রোকলির চাহিদা রয়েছে। সেখানে কেজি করে নয় প্রতিপিচ অনুযায়ী ব্রোকলি বিক্রি হচ্ছে। বাজারে ব্রোকলির প্রতিপিচ ৩০ টাকা থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা ও সিলেট সদর উপজেলার টুকরবাজার এলাকায় বিচ্ছিন্নভাবে এই আকর্ষনীয় সবজিটির চাষ হয়েছে। ব্রোকলি শুধু একটি সবজি হিসেবে নয় এটির স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক। ব্রোকলি বা সবুজ ফুলকপি হল একটি কপিজাতীয় সবজি। শীতকালীন সবজি হিসেবে ব্রোকলি বর্তমানে আমাদের দেশে প্রচুর পরিমাণে চাষ করা হচ্ছে। ব্রোকলিতে পুষ্টি উপাদান হিসেবে থাকে প্রচুর পরিমাণে আয়রন ও ক্যালসিয়াম। ব্রোকলি খেতে অত্যন্ত উপাদেয়, সুস্বাদু ও পুষ্টিকর একটি সবজি।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই সবজিতে প্রাপ্ত ভিটামিন, মিনারেল চোখের রোগ, রাতকানা, অস্থি বিকৃতিসহ প্রভৃতির উপসর্গ দূর করে ও বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। ব্রোকলি কোষ্ঠকাঠিন্য অনেকাংশে দূর করে থাকে।

সিলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ পরিচালক এম ইলিয়াস জানান, ব্রোকলি চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। একই বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক মো. আলতাবুর রহমান বলেন, সিলেটে ব্রোকলি চাষ করতে সৈয়দুর রহমানকে মন্ত্রণালয়ের একটি প্রকল্প থেকে উৎসাহিত করা হয়েছে। তার এই ব্রোকলি চাষ দেখে স্থানীয় অন্য কৃষকরা উৎসাহিত হচ্ছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত