প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সাধ্যের বাইরে দেনমোহরে বিয়ে করা উচিত নয়

সাঈদ আহসান খালিদ

বিবাহিত স্ত্রী একাধিক পুরুষের সাথে ব্যভিচার করে বেড়াচ্ছে। সমস্ত প্রমাণ স্বামীর হাতে, আছে ব্যভিচারিণীর নিজ মুখের স্বীকারোক্তির ভিডিও। কিন্তু বাংলাদেশের দ-বিধি দাম্পত্য বিশ্বাস ও ভালোবাসার সাথে এই ভয়াবহ প্রতারণার কোনো প্রকার শাস্তি থেকে ওই নারীকে অব্যাহতি দিয়েছে। ব্রিটিশ আমলের ওই মান্ধাতার আইনের ৪৯৭ ধারা এখনো ধরে নিচ্ছে সেই ব্যভিচারী স্ত্রী পুরুষের প্রলোভনের শিকার; সেকশনেই উল্লেখ করে দেয়া আছে সেই নারীকে ব্যভিচারের সহযোগী হিসেবে দায়ি করা যাবে না।

একই ঘটনায় স্ত্রীর ফ্যামিলির সোশ্যাল স্ট্যাটাস রক্ষার চাপে বিয়ের দেনমোহর নির্ধারণ করা হয়েছিলো ৩৫ লক্ষ টাকা! বিচ্ছেদ চাইলেই ঠুকে দেয়া হবে অনাদায়ী দেনমোহরের মামলা- পরিশোধের সাধ্য নেই, যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা, সামাজিক গঞ্জনার খড়গ তো ঝুলছেই!

আলোচ্য ঘটনায় স্বামীটি কোন পথে যাবে? স্ত্রীকে খুন? সেটি যে মৃত্যু দ-নীয় অপরাধ! অতঃপর আইন ও সমাজকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সে নিজেকে খুন করার পথটাই বেছে নিলো। আইন এটিকে ‘আত্মহত্যা’ বলছে। আসলে কি তাই? এই হচ্ছে ওপারে চলে যাওয়া আমার বন্ধু ডা. মোস্তফা মুরশেদ আকাশের জীবন-গল্প। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত