প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গাইডোকে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের স্বীকৃতি

মানবজমিন : ভেনিজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গাইডোকে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। এতে গত নির্বাচনে জয়ী দেশটির সমাজতন্ত্রী প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর ওপর আন্তর্জাতিক চাপ আরো জোরদার হলো। ওপেক সদস্য ভেনিজুয়েলার গত নির্বাচনে জয় লাভ করেছেন তীব্র বামপন্থি মাদুরো। কিন্তু এ নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্ররা। এদিকে, দেশটির বিরোধী নেতা হুয়ান গাইডো নিজেই নিজেকে প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। এর কয়েক মিনিটের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র তাকে স্বীকৃতি দেয়। এরপর মিত্র দেশগুলোও গাইডোকে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বিবৃতি প্রকাশ করে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গাইডোকে স্বীকৃতি দেয়া হবে কিনা এ নিয়ে ভোটাভুটি হয় ইউরোপীয় পার্লামেন্টে।

এতে পক্ষে ভোট দেন ৪২৯ সদস্য এবং বিপক্ষে ভোট পরে ১০৪টি। ভোটদানে বিরত ছিলেন ৮৮ জন সদস্য। এই ভোটাভুটির বিষয়ে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় পার্লামেন্টের বিশেষ অধিবেশন বসে। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর জন্য ভোটের এই ফলাফল মানা অপরিহার্য নয়। ভোটাভুটির পর ইউরোপীয় পার্লামেন্ট একটি বিবৃতি দিয়েছে। এতে ২৮ জাতির ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত সরকারগুলোকে ভেনিজুয়েলায় অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট গুয়াইডোকে একমাত্র বৈধ রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

এর আগে গত শনিবার ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি ও স্পেন আট দিনের সময় বেঁধে দিয়ে বলেছিল, এর মধ্যে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না করলে গুয়াইডোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হবে। প্রেসিডেন্ট মাদুরো এসব দেশের ওই শর্ত প্রত্যাখ্যান করেছেন।

এদিকে, সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকের দাবি করেছেন ভেনিজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গাইডো। কিন্তু প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে প্রতিদিন টিভিতে সামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে। হুয়ান গাইডো জানিয়েছেন, তিনি সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। নিউ ইয়র্ক টাইমসে লেখা এক প্রবন্ধে গাইডো বলেন, তিনি গোপনে ‘সামরিক বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন’। তিনি আরো বলেন, সরকার পরিবর্তনের জন্য মাদুরোর ওপর থেকে সামরিক বাহিনীর সমর্থন প্রত্যাহার জরুরি। তার দাবি, দেশটির বর্তমান অবস্থা যে সমর্থনযোগ্য নয়, সে ব্যাপারে সামরিক বাহিনীর অধিকাংশ সদস্যই একমত।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট মাদুরোকে প্রতিদিন সরকারি টেলিভিশনে সামরিক শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে। বুধবারও টিভিতে দেখানো এক ফুটেজে মাদুরোকে একটি সেনা ক্যাম্পে দেখা গেছে। সেখানে তিনি সৈন্য ও কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা কি দেশকে ভালোবাসেন? আপনারা কি সংবিধান রক্ষা করবেন? আপনারা কি আপনাদের কমান্ডার-ইন-চিফকে রক্ষা করবেন? উত্তরে সামরিক সদস্যরা বলেন, হ্যাঁ, কমান্ডার-ইন-চিফ। এর আগে দেশটির সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা মাদুরোর প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বিবৃতি দিয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত