প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এখন মোটামুটি ভালো আছে

মাহফুজুর রহমান : মেয়েটি ( শ্যালকের বউ) শ্বশুর-শাশুড়ির সাথেও তেমন ভালো ব্যবহার করে না, স্বামীর সাথেও করে না । সে আলাদা বাসায় যাবে, স্বামীকে চাপ দিয়েও সুবিধা হয় না। শাশুড়ির সাথে মুখে মুখে তর্ক করে, স্বামীকেও তুইতোকারি বলে, অথচ প্রেম করে সবার অমতে বিয়ে । কোলে তিন মাসের বাচ্চা, তাকেও তেমন যতœ নেয় না। মেয়েটির গার্জিয়ানকে বলেও সুবিধা হয়নি। ঝগড়াঝাঁটি কোনো মতেই যখন থামে না, তখন স্বামী তার স্ত্রীকে একদিন সকালে ২/ ৩ দিন বেড়ানোর কথা বলে বাপের বাড়িতে রেখে উকিলের সাথে পরামর্শ করে ডিভোর্স লেটার দেয় । পরে মেয়েটি স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের মামলা দেয়। অথচ মামলা না দিয়ে আপস করার সুযোগ নিতে পারতো। মামলার আসামি হিসেবে স্বামীর জেল হয় , শাশুড়ি-ননদের দীর্ঘ কয়েকমাস আদালতে যাতায়াত করতে হয় ।

এক বছর পরে স্বামী মেয়েটিকে আবার বাসায় আনে, ঘর করছে, হিল্লা বিয়ে হয়নি (আমার সাথে দিলেও পারতো) তবে হিল্লা বিয়ের প্রয়োজন ছিলো দু’জনের শাস্তি স্বরূপ। এখন মোটামুটি ভালো আছে। ফেসবুক থেকে

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত