প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোচিং মালিকরা বললেন, কোচিং সেন্টার বন্ধ, মানে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়াও বন্ধ

মুহাম্মদ নাঈম : কাল থেকে সাড়াদেশে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অমান্য করে নামে বোনামে বিভন্ন কোচিংসেন্টার খেনো খোলা রয়েছে। শুধু তাই নয়, তারা কোচিংয়ের সকল কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। কোচিং মালিকদের ভাষ্য- কোচিংসেন্টার বন্ধ মানে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া বন্ধ।

আর শিক্ষাবিদরা বলেন, শিক্ষা হলো মানুষের মৌলিক অধিকার। কোচিংসেন্টারগুলো এই অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে শিক্ষার্থীদের । বাণিজ্যক কারণেই কোচিং মালিকরা কোচিংসেন্টার খোলা রাখছেন। তারা কোনো আইন তোয়াক্কা না করে কোচিংসেন্টার খোলা রাখছেন, যা পুরোপুরি আইনের পরিপন্থি বলে মনে করেন শিক্ষাবিদরা।

কোচিং মালিকদের অন্য ভাষ্য হলো, অভিভাবকরা জানেন এসকল স্কুল-কলেজে পড়ালেখার মাধ্যমে তাদের ছেলে-মেয়েরা ভালো কোথাও ভর্তি হতে পারবে না। এ কারণে তারা তাদের ছেলেমেয়েকে আমাদের কাছে পাঠায়। বিনিময় আমাদের সংসারটাও চলার একটা ব্যবস্থা হয়। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের কিছু শিখাতে পারলে আমাদেরও ভালো লাগে।

অভিভাবকদের ভাষ্য হলো, কোচিং না করালে তাদের ছেলে-মেয়েরা সোনার হরিণ নামক ‘এ প্লাস’ থেকে বঞ্চিত হবে। তাছাড়া আমাদের কোচিংসেন্টার এখনো বন্ধ হয়নি। তাই আমরা সন্তানদের এখানে নিয়ে এছেছি। আর কোচিংসেন্টারে পাঠানোর পর থেকে আমাদের ছেলে-মেয়েরা ভালো লেখাপড়া করছে। এর ফলে আমাদের সন্তানরা ভালোই আছে বলে মন্তব্য করেন অভিভাবকরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত