প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লেখক নাসরীন জাহান বললেন, বর্তমানে বই মেলা জমকালো হচ্ছে কিন্তু নষ্ট হয়েছে নান্দনিকতা

মঈন মোশাররফ : লেখক নাসরীন জাহান বলেছেন, আশির দশক থেকে বই মেলায় যাওয়া শুরু করি। তখন মেলায় অল্প কিছু স্টল ছিলো। আমরা টেবিলের উপর বই রেখে বই বিক্রি করতাম। সেই স্মৃতি ভোলার মতো নয়। আমরা এক অপরকে কখনো বই উপহার দিতাম না। একে অপরের বই কিনতাম। সেই সময়টা খুবই পরিচ্ছন্ন ছিলো। তখন বই মেলায় গ্রামীণ মেলার পরিবেশ ছিলো। বর্তমানে অনেক মিডিয়া হয়েছে। প্রচুর মিডিয়া কাভারেজ হয়। বর্তমানে বই মেলা চৌকশ এবং জমকালো হচ্ছে। মেলার নান্দনিকতাটা বর্তমানে নষ্ট হয়েছে। শুক্রবার বিবিসি বাংলাকে তিনি এসব কথা বলেল।

তিনি বলেন, একুশে বই মেলা লেখক ও পাঠকদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। মেলায় এলে লেখক ও পাঠকদের দেখা মেলে। একুশে বই মেলায় অনেক বই একসঙ্গে পাওয়া যায়। ফেব্রুয়ারি মাসে মেলা ঘিরে উৎসব চলে। মেলায় এক বছর পরে একজন লেখকের সাথে দেখা হলে মনে হয় গতকালই দেখা হয়েছে। বই প্রকাশ মেলাকেন্দ্রিক হয়ে গেছে। তাই মেলাটা এতো গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশে সারা বছর বই তেমন প্রকাশ হয় না। যা প্রকাশ হয় তা খুবই কম। বর্তমানে বই প্রকাশিত হলে পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়া হয়। সব মিডিয়া মেলায় থেকে লাইভ কাভারেজ করে। বর্তমানে এসমস্ত মোহ লেখকের মধ্যে কাজ করে। মেলায় অনেক লেখকের মোড়ক উন্মোচন করে সেটা আবার টিভিতে প্রচার করে। তবে বইয়ের গুনগত মান কমে গেছে।

তিনি জানান, আমাদের সময় এক স্টলের বই অন্য স্টলে বিক্রি হতো। আমরা মেলায় ঢুকেই সবধরনের বই পেতাম। মিডিয়াগুলো মেলা ছাড়া বই প্রকাশনা কাভার করে না। এখন প্রকাশককেন্দ্রিক মেলা হয়ে গেছে, লেখককেন্দ্রিক মেলা নেই। যদি ছোট স্টলে বড় স্টলের প্রকাশকরা বই বিক্রির জন্য দিতো, তাহলে খুব ভালো হতো।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত