প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপি যদি সংসদীয় গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে, আসন সংখ্যা যতো কমই হোক না কেন, তাদের সংসদে যাওয়া উচিত বলে মনে করেন ড. অজয় রায়

আশিক রহমান : শিক্ষাবিদ ড. অজয় রায় বলেছেন, বিএনপি যদি সংসদীয় গণতন্ত্রে বিশ^াস করে, আসন যতো কমই হোক না কেন, তাদের সংসদে যাওয়া উচিত। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, সংসদে গিয়ে একটা কার্যকরী বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করা কর্তব্য বিএনপির। সেটা দেশের গণতন্ত্র ও বিএনপির স্বার্থেই করা দরকার।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. অজয় রায় বলেন, আওয়ামী লীগকে যদি একতরফভাবে সবকিছু ছেড়ে দেয়া হয় তাহলে গণতন্ত্রের বিকাশ হবে না। গণতন্ত্রের নামে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা পাবে। গণতন্ত্রের জন্য এটি কিছুতেই ভালো কিছু বয়ে আনবে না। গণতন্ত্রের পক্ষের একজন মানুষ হিসেবে আমি মনে করি, বিএনপির সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত বা পদক্ষেপ ইতিবাচক নয়।

তিনি বলেন, বিএনপির উচিত দলটিকে নতুন করে সংগঠিত করা। দেশের গণতন্ত্রকে সুসংগঠিত করার জন্য প্রচারে নামা, যাতে তারা নিজেরা একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়। কারণ অনেকেই মনে করেন, বিএনপি হচ্ছে খালেদা জিয়ার দল, গণতন্ত্রে বিশ^াস করে না। নেতিবাচক এই ইমেজটা তাদের দূর করতে হবে এবং মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য একটা দল হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সেটা দৃশ্যমানও করতে হবে মানুষের কাছে। জনগণের কাছে নিজেদের আরও জোরালোভাবে উপস্থিত করাও জরুরি।

তিনি আরও বলেন, সরকারের প্রতি মানুষের বিপুল প্রত্যাশা রয়েছে। এই প্রত্যাশা তারা কীভাবে মেটাবে, দলটিই কেবল বলতে পারবে। মানুষের সব প্রত্যাশা তো মেটানো যায় না, সরকারও জনগণের সব প্রত্যাশা মেটাতে পারবে না। তবে যেটা করা যায়, মানুষের প্রত্যাশার জায়গাগুলো অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করা উচিত সরকারের। মধ্যম মানের একটি অর্থনৈতিক দেশে উন্নীত করতে পারলে মানুষকে সন্তুষ্ট করা যাবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে ড. অজয় রায় বলেন, সংসদ কার্যকর করতে হলে বিরোধী দলগুলোকে স্পেস দিতে হবে সরকারকে। গণতন্ত্র, উন্নয়ন, কল্যাণমুখী যেসব পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে তা নিয়ে কাজ করতে হবে। মানুষের জন্য স্বস্তির একটা পরিবেশ নিশ্চিত করাটাও দরকার। সব মিলিয়ে সরকারকে মানুষের মনের কথা বুঝে এগোতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত