প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শ্রমিক সহায়তায় নতুন হেল্পলাইন ১৬৩৫৭ চালু, উদ্যোক্তাদের সাধুবাদ

স্বপ্না চক্রবর্তী : দেশের তৈরি পোশাক কারখানার শ্রম পরিস্থিতি, ঘোষিত মজুরি কাঠামো বাস্তবায়ন এবং যেকোনও পরিস্থিতি জানানোর জন্য ১৬৩৫৭ হেল্প লাইন চালু করেছে সরকার। বিষয়টিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন পোশাক শিল্প মালিক খাতের উদ্যোক্তারা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘তৈরি পোশাক শিল্প খাতে সমন্বিত শ্রম ব্যবস্থপনা’ বিষয়ক আলোচনা সভায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এই হেল্প লাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয়ের সচিব আফরোজা খান, বাংলাদেশ এমপ্লায়ারস ফেডারেশনের সভাপতি কামরান টি রহমান, বিজিএমইএ এর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, বিকেএমই এর ভাইস চেয়ারম্যান মনসুর আহমেদ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহামুদ এবং জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি ফজলুল হক মন্টু বক্তব্য রাখেন।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারখানায় মজুরি কাঠামো বাস্তবায়ন নিয়ে শ্রম পরিস্থিতি সুষ্ঠু, সুন্দর এবং শান্তিপূর্ণ রাখার লক্ষ্যে সার্বক্ষণিক শ্রম পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে আমরা কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর এবং শ্রম অধিদফতরের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সদস্য করে ২৯টি পরিবীক্ষণ কমিটি গঠন করেছি। কমিটির সদস্যরা ঘোষিত মজুরি কাঠামো বাস্তবায়নের বিষয় মনিটরিং করবেন। কোনও কারখানায় শ্রমিক ছাটাই বা চাকরিচ্যুতির ঘটনা ঘটলে আইনানুগ নিষ্পত্তি করবে, কোনও বিশৃংখলা দেখা দিলে কারখানায় যাবেন এবং মালিক-শ্রমিক নেতাদের নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করবেন। এই কমিটির সদস্যরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করার জন্য মালিকের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিটি কারখানায় ফোকাল পয়েন্ট নির্ধারণ করবেন, সামগ্রিক শ্রম পরিস্থিতি সম্পর্কে কমিটি মন্ত্রণালয়ে নিয়মিত প্রতিবেদন পাঠাবেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই না মজুরি কাঠামো বাস্তবায়ন নিয়ে আর কোনও অস্থিরতা সৃষ্টি হোক। মজুরি কাঠামো বাস্তবায়নে শ্রম পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে দেশের শ্রমঘন এলাকা ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলায় এই ২৯টি কমিটি গঠন করা হয়েছে ।
এসময় জানানো হয়, এই হেল্পলাইন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর তত্ত¡াবধান করবে। সম্পূর্ণ বিনা খরচে শ্রমিকরা যেকোনও সময়ে তাদের কর্ম বিষয়ক যেকোনও ধরনের অভাব-অভিযোগ জানাতে পারবেন। এটি ২৪ ঘণ্টা চালু থাকবে। এই হেল্পলাইন নম্বরটি প্রতিটি কারখানায় বড় বড় অক্ষরে দর্শনীয় স্থানে দর্শনের ব্যবস্থা থাকবে।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ এর সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, যদিও আমাদের প্রত্যেকটি কারখানাতেই অভিযোগ বক্স আছে। তবু নতুন হেল্পলাইন চালু হওয়া সরকারের একটি ভালো উদ্যোগ। একই কথা বলেন বিকেএমইএ এর সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদ। তিনি বলেন, শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। জেনে ভালো লাগছে যে আমাদের পাশাপাশি সরকারও শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এরকম একটি হেল্পলাইন চালু করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত