প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘরের মাঠে ঢাকাকে হারিয়ে শেষ চারে ভাইকিংস

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম পর্বের শেষ দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় স্বাগতিক চিটাগং ভাইকিংস আর গতবারের রানার্সআপ ঢাকা ডায়নামাইটস। অবশেষে নিজেদের মাটিতে জয়ের দেখা পেয়েছে চিটাগং। চট্টগ্রাম পর্বে মাঠে নামার আগে ভাইকিংসরা মাত্র একটি ম্যাচ হেরেছিল। তবে, ঘরের মাঠে টানা তিন ম্যাচ হেরে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান হারায় মুশফিকের দলটি। এদিকে, আসরের শুরতে উড়তে থাকলেও মাঝে এসে ডায়নামাইটসরা জয়ের ধারাবাহিকতা হারিয়ে ফেলে। ভাইকিংসদের বিপক্ষে ঢাকা হেরেছে ১১ রানের ব্যবধানে।

শেষ চারে উঠার গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে সাকিবের ঢাকার বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় মুশফিকের চিটাগং। নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে চিটাগং তোলে ১৭৪ রান। জবাবে, নির্ধারিত ওভারে ১৬৩ রান তুলে ইনিংস থেমে যায় ৯ উইকেট হারানো ঢাকার। এই জয়ে চিটাগংয়ের পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ালা ১৪, ঢাকা থমকে দাঁড়ালো ১০ পয়েন্ট নিয়ে। চিটাগংয়ের আরও একটি ম্যাচ আছে, ঢাকার আছে দুটি। তবে, এরই মধ্যে রংপুর এবং কুমিল্লার পর তৃতীয় দল হিসেবে শেষ চারের টিকিট নিশ্চিত করেছে ভাইকিংস।

ব্যাটিংয়ে নেমে চিটাগংয়ের আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ দ্রুতগতিতেই রানের চাকা ঘোরাতে শুরু করেন। ১৫ বলে তিনটি বাউন্ডারি আর একটি ওভার বাউন্ডারিতে তিনি করেন ২১ রান। তিন নম্বরে নামা ইনফর্ম ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলি ২০ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন। এরপর জুটি গড়েন আরেক ওপেনার ক্যামরুন দেলপোর্ট এবং দলপতি মুশফিক। ৪৬ বলে তারা স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ৭৯ রান।

শেষ ওভারের প্রথম বলে বাউন্ডারি সীমানায় ক্যাচ দিয়ে আউট হওয়ার আগে মুশফিক করেন ৪৩ রান। তার ২৪ বলের ইনিংসে ছিল চারটি চার আর দুটি ছক্কা। আন্দ্রে রাসেলের পরের বলেই বিদায় নেন ৭১ রান করা দেলপোর্ট। তার ৫৭ বলের ইনিংসে ছিল ৫টি চার আর ৪টি ছক্কার মার। রাসেল তার তৃতীয় বলে ফিরিয়ে দেন দাসুন শানাকাকে। হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন এই ক্যারিবীয়ান। বিপিএলের এই মৌসুমে এটি তৃতীয় হ্যাটট্রিক। সিকান্দার রাজা ৬ আর মোসাদ্দেক হোসেন ১ রানে অপরাজিত থাকেন।

ঢাকার দলপতি সাকিব ৩ ওভারে ২০, অ্যান্ড্রু বির্চ ৪ ওভারে ৩৫, রুবেল হোসেন ৪ ওভারে ৪২ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। সুনীল নারাইন ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে পান দুটি উইকেট। আন্দ্রে রাসেল ৪ ওভারে ৩৮ রান দিয়ে তুলে নেন তিনটি উইকেট।

১৭৫ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকার শুরুটা ভালো হয়নি। ওপনার সুনীল নারাইন কোনো রান করেই বিদায় নেন। আরেক ওপেনার মিজানুর রহমান ১০ বলে করেন ১১ রান। তিন নম্বরে নামা রনি তালুকদার (৬) দলকে টানতে পারেননি। কাইরন পোলার্ড প্রথম বল মোকাবেলা করেই রানআউট হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন। তবে, একপ্রান্তে ব্যাট চালিয়ে যান দলপতি সাকিব আল হাসান। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন আন্দ্রে রাসেল।

রাসেল ২৩ বলে চারটি চার আর দুটি ছক্কায় ৩৯ রান করে বিদায় নেন। এরপর শুভাগত হোম ৫ রান করে ফেরেন। ৪২ বলে ইনিংস সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন সাকিব। ডায়নামাইটসের দলপতি ছয়টি বাউন্ডারিতে তার ইনিংস সাজান। অ্যান্ড্রু বির্চ ৭, মাহমুদুল হাসান ২ রান করেন।

চিটাগংয়ের পেসার খালেদ আহমেদ ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। ক্যামেরুন দেলপোর্ট ৪ ওভার বল করে ৩১ রান খরচায় তুলে নেন একটি উইকেট। নাঈম হাসান ৪ ওভারে ৩৭ রানের বিনিময়ে পান একটি উইকেট। দাসুন শানাকা ৪ ওভারে ৩৪ রানের বিনিময়ে পান দুটি উইকেট। আবু জায়েদ রাহি ৪ ওভারে ২৫ রান খরচ করে তুলে নেন তিনটি উইকেট।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত