প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গুয়াইদোর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ভেনেজুয়েলা সুপ্রিমকোর্টের; যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সহায়তার আহ্বান মাদুরোবিরোধী সেনাদের

সান্দ্রা নন্দিনী : ভেনেজুয়েলার বিরোধীনেতা স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুয়াইদোর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। এর পাশাপাশি, তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার মাদুরো-অনুগত সুপ্রিমকোর্ট দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল তারেক উইলিয়াম সাব গুয়াইদোর বিরুদ্ধে একটি ‘পূর্বসতর্কতামূলক’ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানানোর পরপরই এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। অন্যদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে অস্ত্র সহায়তার জন্য আবেদন জানিয়েছে মাদুরোর পক্ষত্যাগকারী সেনা সদস্যরা। তাদের ভাষ্যমতে, ‘স্বাধীনতা’র জন্য লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অস্ত্র চান তারা। বিবিসি

সুপ্রিমকোর্ট প্রধান মাইকেল মোরেনো বলেন, সংসদীয় তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিরোধীনেতার দেশত্যাগ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হলো। অন্যদিকে, গুয়াইদো সাংবাদিকদের বলেন, এধরনের পদক্ষেপ নতুন কিছু নয়।
গুয়াইদো জানান, ‘আমি এই মুহূর্তে চলমান যাবতীয় হুমকি-ধামকি কিংবা নিপীড়ন একেবারে খারিজ করে দিচ্ছি না। তবে আমরা এখানেই আছি এবং আমাদের যাকিছু করণীয় সেগুলো পালন করে যাচ্ছি।’

গত সপ্তাহে গুয়াইদো নিজেকে ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট দাবি করার পর থেকেই দেশটিতে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব চলছে। জাতিসংঘের হিসেব মতে, গত ২১ জানুয়ারি থেকে অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া, শতাধিক নাগরিককে গ্রেফতার করেছে মাদুরো সরকার। দেশটির উচ্চমুদ্রাস্ফীতি ও খাবার-ওষুধের অপর্যাপ্ততার কারণে লক্ষাধিক নাগরিককে দেশত্যাগে বাধ্য হয়।

গুয়াইদোকে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থন জানালেও প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর পাশে থাকার অঙ্গীকার করেছে রাশিয়া, চীন ও তুরস্কসহ বেশ কয়েকটি ক্ষমতাশালী দেশ। আবার, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার কয়েকটি দেশ যেকোনও বিদেশি সামরিক হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করেছে। পেরুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী নেস্টোর পোপোলিজিও বলেছেন, ‘কানাডাসহ ২০১৭ সালে গঠিত ১৪ দেশের জোট লিমা গ্রুপ ভেনেজুয়েলা সঙ্কটের একটি শান্তিপূর্ণ সমাধান খুঁজে বের করতে কাজ করছে। তবে, কোনরকম সামরিক হস্তক্ষেপ চলবে না।’

এদিকে, মাদুরোর ওপর চাপবৃদ্ধি অব্যাহত রাখতে যুক্তরাষ্ট্রে ভেনেজুয়েলীয় ব্যাংকগুলো অ্যাকাউন্টগুলোর নিয়ন্ত্রণ গুয়াইদোকে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও গত সপ্তাহেই ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক এবং কেন্দ্রীয়ভাবে বীমাকৃত ব্যাংকগুলোতে থাকা অ্যাকাউন্টগুলোর নিয়ন্ত্রণ গুয়াইদোর হাতে দেওয়ার আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এতথ্য নিশ্চিত করে জানায়, ‘আদেশটি ভেনেজুয়েলার বৈধ সরকারকে এই সম্পদের সুরক্ষা দিতে এবং সেগুলো দেশটির নাগরিকদের জন্য কাজে লাগাতে সহায়তা করবে।’

অন্যদিকে, ভেনেজুয়েলার সাবেক দুই সৈনিক কার্লোস গ্যুলেন মার্টিনেজ ও জোসু হিদালগো আজুয়াজে যারা এখন দেশের বাইরে রয়েছেন, সিএনএন’কে জানান, তারা চান মার্কিন সেনাবাহিনী যেন তাদের অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করে। তাদের দাবি কয়েকশ’ বিদ্রোহী সেনাসদস্যের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ রয়েছে যারা মাদুরোর বিরুদ্ধে যুদ্ধে নামতে উদগ্রীব হয়ে রয়েছেন।
তারা বলেন, ‘ভেনেজুয়েলার সেনা সদস্য হওয়ায় আমরা যুক্তরাষ্ট্রের কাছে আবেদন জানাচ্ছি আমাদের লজিস্টিক, যোগাযোগ, অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে সহায়তা প্রদান করতে। যেন আমরা আমাদের দেশকে স্বাধীনতা এনে দিতে পারি।’
তারা আরও জানান, ‘আমরা বলছি না যে আমাদের কেবল যুক্তরাষ্ট্রেরই সমর্থন প্রয়োজন। এছাড়াও ব্রাজিল, কলম্বিয়া, পেরুসহ স্বৈরশাসকের বিপক্ষের সকল দেশের সহায়তার আমাদের প্রয়োজন পড়বে।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত