প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যত মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন হবে, তত বেশি পরিমাণ টাকা পাচার হবে, বললেন শওকত মাহমুদ

মারুফুল আলম : ইকোনোমিক টাইমস’র সম্পাদক শওকত মাহমুদ বলেছেন, দেশে যখন মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে, তখন বেশি পরিমাণ টাকা দেশের বাইরে চলে যাবে। টাকার পরিমাণ নিচে নামার সুযোগ খুবই কম। মঙ্গলবার ডিবিসি নিউজ’র সংবাদ সম্প্রসারণ অনুষ্ঠানে তিনি আরো বলেন, যে টাকা পাচার হচ্ছে, তা নিশ্চয়ই কালো টাকা। কারা এই অর্থ পাচারে জড়িত সরকারের কি তাদের ধরা উচিত না? আসলে সরকার মুখে যা বলে, তা করে না।

দূর্নীতি ধারণা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান গত বছরের তুলনায় চার ধাপ নেমে গেছে এবং ২০০৬ সালের তুলনায় নেমে গেছে ৬ ধাপ। শওকত মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ বিরোধীদলে থাকাকালীন টিআইবির রিপোর্ট যখন দেয়া হতো তারা সমস্বরে অভিনন্দন জানাতো।

কিন্তু এখন যখন দূর্নীতির ধারণায় বাংলাদেশের অবনতি হয়েছে, তখনই আ.লীগ টিআইবির পদ্ধতি নিয়ে কথা তুলেছে। দুই তিন বছর আগে এমনও হয়েছে যে, তথ্যমন্ত্রী টিআইবির লোকজনকে তথ্যমন্ত্রণালয়ে ডেকে নিয়েছেন এবং টিআইবির জরিপের সব কাগজপত্র দেখেছেন। পরে কী রেজাল্ট হলো, সেটি কিন্তু জানা যায়নি। সম্ভবত সরকার বেশি এগুতে পারেনি বলেই জানা যায়নি।

শওকত মাহমুদ আরো বলেন, পদ্ধতি নিয়ে যা-ই বলি না কেনো, এটাই বাস্তবতা। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি সংস্থা বলেছে এবং তারা আগের বছরও বলেছে, শুধু ২০১৫ সালেই ৫০ হাজার কোটি টাকার সমপরিমান বৈদেশিক মুদ্রা পাচার হয়েছে। তারা এ-ও বলেছে যে, কয়েক বছরে প্রায় ৫ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকার সমপরিমান অর্থ বিদেশে পাচার হয়েছে।

ঐক্যফ্রন্ট ভেঙ্গে যাবার সম্ভাবনা প্রশ্নে শওকত মাহমুদ বলেন, এই নির্বাচনে অংশ নিয়ে ঐক্যফ্রন্ট সরকারকে এক্সপোজ করার সুযোগ তৈরি করেছে, সে ঐক্যফ্রন্টের রাজনৈতিক মূল্য অবশ্যই আছে। আমি মনে করি না যে, সেটি এই মুহূর্তে ভেঙ্গে যাওয়ার মতো। বরং ঐক্যফ্রন্ট যেনো গঠন না হতে পারে তার জন্য শাসকদল প্রচারণা করেছিলো। শাসকদলের সেই ব্যর্থতা নিয়েও আলোচনা আছে। সেই শাসকদল কীভাবে সামনে এগোয় সেটি এখন দেখার বিষয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত