প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রয়োজনে দুদকের জনবল দ্বিগুণ করুন ধোঁকা দিয়ে বেশিদিন টিকে থাকা যায় না

মাহফুজুর রহমান

টানা ১৫ বছর ধরে ক্ষমতায় থেকে পরিপক্বতা অর্জনকারী আওয়ামীগ লীগ সরকারের আমলে গত এক বছরেই নাকি ৫০ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়েছে। মহাবিপদ সংকেত! আর এটা দিয়ে নাকি আরেকটি পদ্মা সেতু করা যেতো! যেখানে দেশে আওয়ামী লীগ ছাড়া আর কোনো দল নেই বললেই বোধকরি ভালো শোনায় সেখানে এসব কারা করলো? নাকি জয় বাংলা স্লোগান যারা উচ্চস্বরে দিচ্ছে তারাই এসব করছে?

ওভার ইনভয়েসিংÑ দেশি আমদানিকারকরা বিদেশি বিক্রেতাদের যোগসাজশে এটা ঘটে। আমদানি মূল্য বেশি দেখিয়ে এল/সি খোলে, ডলার পাচার করে । আবার আন্ডার ইনভয়েসিং, রফতানি মূল্য কম দেখিয়ে অর্থ পাচার করে। হুন্ডি তো আছেই।

মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম প্রকল্পে বিনিয়োগকারীতে বাংলাদেশ নাকি দ্বিতীয়। অথচ বাংলাদেশ ব্যাংক নাকি গত ১০ বছরেও এমন প্রকল্পের জন্য অর্থ বিনিয়োগের অনুমতি দেয়নি! বাংলাদেশিরা কীভাবে সেখানে বিনিয়োগ করলো? বাড়ি বানালো? বড় চিন্তার বিষয়। মালয়েশিয়ার সরকারের কাছ থেকে নামগুলো জেনে নিয়ে তাদের দুদকের মাধ্যমে জিজ্ঞেস করা কী খুব কঠিন?

পণ্য আমদানি করার নামে চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনার ভর্তি নাকি খোয়া বালি এসেছে। আর এইটার খ/ঈ ডলার হাওয়া হয়ে গেলো! নিউজে হেড লাইন হলো কিন্তু কয়েকদিনের মধ্যে নিউজটি হাওয়া হয়ে গেলো? অর্থের বিনিময়ে কার সাথে দফারফা হলো? জাতি জানতে চায়।

ব্যাক টু ব্যাক এল/সি, এটা তো আরেক হাওয়া বানানোর যন্ত্র! কারা কীভাবে এসব করে তা ধরা কী খুব কঠিন? মোটেই নয়। শুধু সদিচ্ছার অভাব। আর দুই-এক বছরের মধ্যে দেশে মনে হয় আর অন্য কোনো দলের লোক থাকবে না, সব জয় বাংলা হয়ে যাবে, ঠিক স্বাধীনতার পর পরের অবস্থা! তখন সম্ভবত ২৯০ সিট আওয়ামী লীগের ছিলো, আর এখন ২৬০ সিট, তফাৎ তেমন একটা নেই। সবাই নিজের দলের লোক তাহলে দেশে তো এসব থাকার কথা ছিলো না? অথচ সবগুলোর জন্যই মন্ত্রণালয় আলাদা আছে, মন্ত্রী আলাদা আছে। তাহলে কী হচ্ছে? প্রয়োজনে দুদকের জনবল দ্বিগুণ করুন। ধোঁকা দিয়ে বেশিদিন টিকে থাকা যায় না। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত