প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অতি­­­­­মাত্রায় হেডফোন ব্যবহারের ফলে কানের দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি হতে পারে, বললেন ডা. কামরুল হাসান তরফদার

জুয়েল খান : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের, নাক-কান-গলা (ইএনটি) বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান তরফদার বলেছেন, যারা উচ্চমাত্রায় গান শোনেন তারা হেডফোন খোলার পরও অনেকক্ষণ ভালো ভাবে কানে শোনেন না। আর এর ফলে তারা সাময়িক বধিরত্বের শিকার হয়। এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, কানে হেডফোন দিয়ে উচ্চমাত্রার শব্দ শুনলে শ্রবণ শক্তি চিরতরে হারাতে পারে। বাইরে যখন কোনো শব্দ হয় সেই শব্দ বাতাসের মাধ্যমে ২০ মিলি সেকেন্ড পরে সহনীয় মাত্রায় আমাদের কানে প্রবেশ করে। কিন্তু আমরা যখন হেডফোন ব্যবহার করি তখন শব্দটা ২০ মিলি সেকেন্ডের আগেই আমাদের কানে এসে পৌঁছায় আর এই শব্দটা যদি ৯৫ ডেসিবেলের বেশি হয় সেক্ষেত্রে শ্রবণশক্তি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তিনি আরও বলেন, আমরা যদি হেডফোনে ৯৫ ডেসিবেল শব্দ ৪ ঘন্টা শুনি তাহলে শ্রবনশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ১০০ ডেসিবেল শব্দ ২ ঘন্টা শুনি তাহলে কানে দীর্ঘ মেয়াদি প্রভাব পরবে। ১০৫ ডেসিবেল শব্দ ১ ঘন্টা শুনি তাহলে কান নষ্ট হয়ে যাবে। ১১০ ডেসিবেল শব্দ ৩০ মিনিট শুনি তাহলে কান নষ্ট হয়ে যাবে। আর এর থেকে উচ্চমাত্রায় গান শুনলে চিরতরে শ্রবণশক্তি হারাবে।

তিনি আরো বলেন, কিছু নিয়ম মানলে এই বিষয় থেকে কিছুটা নিরাপদ থাকা সম্ভব যেমন, ভলিউম কমিয়ে গান শোনা, বড় ধরনের হেডফোন ব্যবহার করা। যেসকল হেলফোনে ফোম লাগানো থাকে এবং পুরো কান ঢাকা পড়ে, যা চারপাশের শব্দ থেকে আপনাকে সুরক্ষা দেবে। কম ভলিউমে গান শুনলে শ্রবণশক্তি রক্ষা করা সম্ভব। তবে কিছু খাবার আছে যা আপনাকে কিছুটা সুরক্ষা দিতে পারে যেমন- কমলা, লেবু, ক্যাপসিকাম, কাঁচা মরিচ এবং ব্রকোলির মতো সবজি। এসব সবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন ই এবং ম্যাগনেশিয়াম যা আপনার শ্রবণ শক্তিকে আরও প্রখর করবে।

 

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত