প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সর্বংসহা

আরিফ জেবতিক : আমি ভিসি স্যারের বক্তব্যে ট্রল করার মতো কিছু পাচ্ছি না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য এর মায়া। এ ক্যাম্পাস সর্বংসহা। এখানে দশ টাকায় ‘চা-শিঙাড়া-চপ’ আসলেই পাওয়া যায়, এছাড়া এ ক্যাম্পাস সম্ভবত বিশ্বের একমাত্র ক্যাম্পাস যেখানে অবাধে বিচরণ করা যায়। প্রেম করতে, ঝগড়া করতে, আড্ডা মারতে এখানে বাইরের মানুষ আসে। মফস্বলের ভাই বেরাদর অনায়াসে যে কোনো হলে উঠে কয়েক রাত থাকতে পারে, প্রশাসন নিষেধ করে না। ষোলোই ডিসেম্বর, কী পহেলা বৈশাখে, কী যে কোনো উৎসবে এখানে লোকে লোকারণ্য হয়।

তারপর ধরেন লাইনঘাট থাকলে এ ক্যাম্পাসে দ্রুত চাকরিও পাওয়া যায়। গত কয়েক বছরে শত শত শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে, দুষ্ট লোকরা বলে আসলে ভোটার নিয়োগ হয়েছে এবং এভাবে চলতে থাকলে কয়েক বছরের মধ্যে কোনো কোনো ডিপার্টমেন্টে ছাত্রের তুলনায় শিক্ষক বেশি হয়ে যেতে পারে, কিন্তু পজিটিভলি দেখলে দেখেন, যে এখানে সবাই কিছু করে, কর্মে খেতে পারছে। এই ক্যাম্পাসে সবাই সমান, একজন চাওয়ালাও এখানে ছাত্রদের মামা এবং আন্তরিক মায়ার বাঁধনে জড়ানো।

আপনি ছাত্র হন কিনা হন, এই ক্যাম্পাসে যদি আপনার ঘুরেফিরে বেড়ানোর অভিজ্ঞতা থাকে, তাহলে দেখবেন যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আসলেই মায়া-মমতায় ইউনিক। ভিসি স্যারের বক্তব্য তারই প্রতিধ্বনি মাত্র।

এখানে কেউই খালি হাতে ফিরে না।

এমনকি মৃণাল হক যদি চান তাকেও হয়তো এখানে একটি রবীন্দ্রনাথ বানানোর অনুমতি দিয়ে দেয়া হতে পারে। ফেসবুক থেকে

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত