প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উপাচার্যরা বহুকাল হলো শিক্ষা নিয়ে কথা বলতে পারেন না, কথা বলেন চা শিঙারা নিয়ে

ফিরোজ আহমেদ : সত্যি, উচ্চারণ নিয়ে কোনো ইঙ্গিত দিতে চাই না। কিন্তু উপাচার্যরা বহুকাল হলো শিক্ষা নিয়ে কথা বলতে পারেন না, কথা বলেন চা, শিঙারা নিয়ে। খাবার-দাবারও গুরুত্বপূর্ণ, কেননা এই বিশ্ববিদ্যালয়টির অধিকাংশ ছাত্রাবাসগুলোর ছেলেমেয়েদের বড় অংশ পুষ্টিহীনতায় আক্রান্ত। বরং আরেকভাবে ভাবেন, কেন হাস্যকরতমটি যাবে কেন্দ্রে? অক্ষমতমটি বসবে গদিতে? মোসাহেবতমটি হবে ক্ষমতাবানতম? কারণ জবাবদিহিতাহীন ক্ষমতা জবাব চাইবে এমন যে কোনো যোগ্য মানুষকে ভয় পায়। তার দরকার হয়ে পড়ে নতজানুতমদের সন্ধান করে আনে উচ্চত আসনগুলোতে বসাবার জন্য।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র আমারও অত্যন্ত প্রিয় স্থান। যদিও জানি দেশের কেন্দ্র হওয়ার প্রেরণা বহুকাল হলো সে হারিয়ে ফেলেছে। জ্ঞান সাধনার মতোই সংস্কৃতির সাধনাও অত্যন্ত জরুরি, তারা দুটি হাত ধরাধরি করেও চলে বহুদূর। কিন্তু যেমন জ্ঞানের সাধনা এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মুখস্ত বিদ্যা সর্বস্ব, কিছু শিক্ষার্থী আর শিক্ষকের ব্যক্তিগত উদ্যোগে কিছু সলতে টিমটিম করে জ্বলছে, তেনি এখানকার সংস্কৃতি শুনতে পাই আরও বেশি পা-াতন্ত্র নিয়ন্ত্রিত, ফলে কিছু ব্যতিক্রম বাদ দিলে আবৃত্তিসর্বস্ব।

ফলে আবৃত্তিসর্বস্ব টিএসসিতে এই উচ্চারণ যতোই আপনাদের কাছে হাসির খোরাক হোক, এটাও তো ভাববেন, টিএসসির খাবার চিরকালই সস্তা ছিলো। কিন্তু ওই জায়গাটুকু ছিলো দ্রোহী, প্রতিবাদী ভাবুক চিন্তাশীল তরুণের মিলনমেলা, পা-াতন্ত্র যে সেটা কেড়ে নিয়েছে, তাদের অনুমোদন ছাড়া সংস্কৃতি বলেন, বিতর্ক বলেন, আবৃত্তি বলুন, চলচ্চিত্র বলুন, কিছুই যে প্রায় হয় না, সেই খবর রাখেন?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত