প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হওয়ার কথা ছিলো বিচ্ছেদ, হয়ে গেলো বিয়ে!

বিনোদন ডেস্ক: নাটকের জনপ্রিয় মুখ নুসরাত ফারিয়ার সঙ্গে হারুনুর রশীদ অপুর পরিচয় ২০১৫ সালে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে ফারিয়া-অপুর বন্ধুত্ব হয়। প্রথমে অপু ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায় ফারিয়াকে। ফারিয়া তা গ্রহণ করে। এর পর ফেসবুকে চ্যাট করতে করতে ভালো বন্ধুত্ব তৈরি হয় তাদের মধ্যে। বন্ধুত্ব গড়ায় প্রেমে। কিছু দিন চুটিয়ে প্রেম করেন দুজনে। তথ্য- যুগান্তর

তাদের তিন বছরের এ সম্পর্কে বসন্তময় সময় যেমন ছিল, তেমনি দুঃসময়ও এসেছিল। একটা সময় দুজন ভেবেছিলেন আর দরকার নেই। সম্পর্কে যতিচিহ্ন তথা ব্রেকআপ (বিচ্ছেদ) করতে চেয়েছিলেন তারা। কিন্তু ভাগ্যবিধাতা তাদের সহায় হয়েছে। অবশেষে এক ছাদের নিচে বসবাসের সুযোগ হয়েছে তাদের।

গুলশানে শনিবার রাতে একটি পার্টি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার গায়েহলুদের অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে অপুও ছিলেন। অনুষ্ঠানে বরকে নিয়ে নেচেগেয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন ফারিয়া।

আনন্দের এই দিনে উচ্ছ্বসিত ফারিয়া শোনালেন তার বিয়ের পেছনের গল্প। স্বামী হিসেবে কেন অপুকে বেছে নিলেন জানালেন সে কথাও।

শনিবার নিজের ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাসে ফারিয়া লেখেন- ‘আমার বন্ধু অপু আর আমি আমাদের বন্ধুত্বের সময় অদ্ভুত একটা টান ফিল করি; এবং প্রেমের সিদ্ধান্তে উপনীত হই! অপজিট অ্যাটাক্ট বলে যে বিষয়টি থাকে, তার পরিণামই হয়তো! কিন্তু তার বছরখানেক পর বিভিন্ন ঘটনার ফলস্বরূপ আমাদের মনে হলো- আমরা বন্ধু হিসেবেই ভালো ছিলাম; সিদ্ধান্ত নিই- আমরা সরে যাব! বাবা চলে যাওয়ার ১৫ দিন আগে জানি না কেন বাবা অপুকে বাসায় ডাকেন এবং আমাদের ব্রেকআপের বিষয়ে জানতে চান!’

শবনম ফারিয়া আরও লেখেন- ‘বাবার চলে যাওয়ার পর আমার মনে হলো- বাবার অবর্তমানে যে মানুষটাকে আঁকড়ে সারাজীবন থাকা যাবে, সে অপু ছাড়া কেউ নয়। সবচেয়ে বড় কথা- বাবা চাই তো আমি অপুকেই বিয়ে করি। এবার পারিবারিকভাবে ঘটনা আগায়। যার ফল বিবাহ! এ কথাগুলো লেখাটা যত সহজ ছিল, সে সময় ডিল করাটা ততই চ্যালেঞ্জিং ছিল! আজকে আমাদের সেই চ্যালেঞ্জিং সময়টাকে আমাদের বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে সেলিব্রেট করলাম।’

তার হবু বরের পুরো নাম হারুনুর রশীদ অপু। একটি বেসরকারি বিপণন সংস্থার জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক তিনি। ১ ফেব্রুয়ারি ফারিয়া-অপুর বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হবে।

শনিবার শবনম ফারিয়ার গায়েহলুদ হয়ে গেল। জমকালো হলুদ সন্ধ্যায় নাচ-গানে মাতিয়ে রাখেন তার বন্ধু ও সহকর্মীরা।

বাদ যাননি শবনমও। নেচেগেয়ে একাকার করেছেন নিজের হলুদ অনুষ্ঠান। সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। নিজের গায়েহলুদে এই সুদর্শনীর কোমর দোলানো নাচ ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

শবনম ফারিয়া দীর্ঘদিন ধরে ছোটপর্দায় অভিনয় করছেন। গত বছর ‘দেবী’ সিনেমার মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে তার। প্রথম সিনেমাতেই সবার প্রশংসা পেয়েছেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত