প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাবা, আমার সমস্ত আয়ু তোমাকে দিলাম, তুমি সবসময় সুস্থ থাকো

রাবেয়া রশিদ স্বপ্না

আমার আব্বা, ভীষণ রকম রাগী একজন মানুষ। চোখটা ছানাবড়া করে তাকালে যেন মুরগির ছানার মতো মায়ের আঁচলের তলায় লুকিয়ে পড়তাম। ভয়ের জন্য প্রয়োজনীয় কথার বাইরে তেমন কোনো কথা হতো না আব্বার সাথে। স্কুলে বান্ধবীদের মুখে যখন বাবা-মেয়ের আহ্লাদের গল্প শুনতাম, তখন মনটা ভীষণ খারাপ হয়ে যেতো। মনে মনে ভাবতাম, আহা! আমার আব্বাটাও যদি এমন হতো!

অভাবের সংসারে বেড়ে ওঠা আমার আব্বা লেখাপড়ায় এগোতে পারেননি। তবে তিনি স্বপ্ন দেখতেন তার ছেলেমেয়েকে নিয়ে। অনেক চেষ্টা করার পরও একটা সময় গিয়ে আমার ভাইকে নিয়ে হাল ছেড়ে দেন। তখন তার সমস্ত স্বপ্নের ভূবন জুড়ে যেন শুধুই আমি। আমাদের সংসার তখন বেশ স্বচ্ছল, অন্তত অভাব শব্দটা নেই। আব্বা রাতে ঘুমানোর আগে তার বালিশের নিচে টাকা রেখে দিতেন। আর সকালে মা পরম যতেœ তা আমার হাতে দিতেন। আব্বা সবসময় প্রয়োজনের তুলনায় কিছু টাকা বেশি দিতেন যাতে করে আমার চলার পথে কোনো অসুবিধে না হয় আর সবসময় বলতেন, আমার মেয়েকে মেয়ে হিসেবে নয়, আমার ছেলের মতো করেই বড় করবো। একথা শুনে আমার আত্মবিশ্বাস হাজার গুণ বেড়ে যেতো।

আব্বা যেমন আমার ভরসা, তেমনি আমি যেন তার আস্থা। জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে তিনি আমাকে সাহস দিয়েছেন। আমার সুখে-দুঃখে পাশে ছিলেন, এখনো আছেন। মূলত এই আমি আব্বার সাহসেই সাহসী। এখন আব্বাকে দেখে যমের মতো ভয় করে না। এখন আমি আব্বার সাথে অনেক গল্প করি। জানি না,আমি আব্বার চাওয়ার মতো করে তার স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি কিনা, তবে এই আমার যতোটুকু অস্তিত্ব এই পৃথিবীর বুকে তা কেবল এই নিঃস্বার্থ মানুষটার জন্য।

যখন মায়ের মুখে শুনি, আব্বা নাকি বলে স্বপ্না-ই আমার মেয়ে, স্বপ্না-ই আমার ছেলে। তখন সত্যিই বেঁচে থাকাকে স্বার্থক মনে হয়। আমার আব্বা আমার কাছে দেবতা। আজ এই দেবতাকে অনেক বেশি মিস করছি। আমার সমস্ত আয়ু তোমাকে দিলাম বাবা, তুমি সবসময় ভালো থাকো, সুস্থ থাকো। আমার পৃথিবীতে তোমাকে ভীষণ প্রয়োজন। পৃথিবীর সকল বাবার প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত