প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অর্থনৈতিক উন্নতির জন্যই সরকারের ধারাবাহিকতাকে বিশ্ব সমর্থন করছে বলে মনে করেন ওয়ালিউর রহমান

খায়রুল আলম : সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান বলেছেন, যদি কোনো দেশে জনগণের নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার ক্ষমতায় আসে তাহলে গণতন্ত্রের পথে এ তরঙ্গটি সারা পৃথিবীতে জাগে।

এ প্রতিবেদকে সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত অনেক ঝামেলার মুখোমুখি হয়ে এসেছি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে দীর্ঘদিন দেশ থমকে দাঁড়িয়ে ছিলো। সেখান থেকে ১৯৯৬ সালে আবার আমরা উড়তে শুরু করেছি।  মাঝে কিছু ছন্দপতন হলেও গত দশ বছরে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি ক্ষমতায় আসার পরে দেশ বহুদূর এগিয়ে গেছে। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে আমাদের দেশ অভাবনীয় একটি সাফলতা দেখিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। কাজেই অনেক দেশের রাষ্ট্রপ্রধান শেখ হাসিনাকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। অর্থনৈতিকভাবে উন্নতির জন্যই সরকারের ধারাবাহিকতাকে সবাই সমর্থন করছে। ১৯৩ দেশের মধ্যে অর্থনীতির দিক দিয়ে আমাদের অবস্থান ২২-২৩-এর মধ্যে। কিন্তু প্রবৃদ্ধি গ্রোথের মধ্যে আমরা অনেক উপরে আছি। ভারত থেকেও আমাদের অবস্থান অনেক ভালো। আমাদের ছোট ইকনমি হলেও প্রবৃদ্ধি অনেক বেশি। যার ফলে সারা পৃথিবী থেকে বিশেষ করে গণতান্ত্রিক দেশের প্রধানরা শেখ হাসিনাকে সমর্থন করে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠাচ্ছেন। এটি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এ জন্য যে, যারা বাংলাদেশের ইতিহাস পড়েছে তারা সবাই স্তম্ভিত হয়ে গেছে। কীভাবে এতো দ্রুত একটি দেশ উন্নতির উচ্চ শিখরে পৌঁছাতে পারে। এটি সম্ভব হয়েছে একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কারণে। মালয়েশিয়ার  প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ যখন ক্ষমতায় আসেন তখন তাদের মাথা পিছু আয় ছিলো ৩৫০ ডলার। তিনি টানা ২২ বছর ক্ষমাতায় থেকে যখন ক্ষমতা ছাড়েন, তখন সেদেশের মাথা পিছু আয় ছিলো সাড়ে ১১ হাজার ডলার। মাহাথির ক্ষমতা ছাড়ার পরে তাদের মাথা পিছু আয় কমতে লাগলো। যার ফলে মাহাতির মোহাম্মদকে আবার ক্ষমতায় আনা হলো। এখন আবার তাদের আয় বাড়ছে। এতে বুঝা যায় দেশ পরিচলান করতে হলে একটি ভিশন নিয়ে পরিচালনা করতে হবে। কোনো দুর্নীতি করা যাবে না এবং দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয়া যাবে না। আমাদের প্রধানমন্ত্রীও মাহাথির মোহাম্মদের মতো একটি ভিশন নিয়ে কাজ করছেন। যার ফলে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত