প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শেখ হাসিনা বাংলাদেশের একজন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর একজন অনুকরণীয় প্রধানমন্ত্রী : আবদুল মান্নান

নাঈমা জাবীন : বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেছেন, শেখ হাসিনা এ দিক দিয়ে কিছুটা হলেও ভাগ্যবতী। কারণ তার প্রশাসনে বেশ কয়েকজন চৌকস আমলা আছেন, প্রজাতন্ত্রের কাছে যাদের আনুগত্য ও যোগ্যতা প্রশ্নাতীত। কিন্তু সব আমলা সম্পর্কে একই কথা বলা যাবে না। সূত্র : কালের কণ্ঠ
প্রধানমন্ত্রী এবারের নির্বাচনী ইশতেহারে যে কয়েকটি বিষয়ের ওপর জোর দিয়েছেন তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সুশাসন, দুর্নীতি দূরীকরণ, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখা, সমাজ থেকে জঙ্গিবাদ ও মাদক সমস্যা নির্মূল। এ কাজগুলো করার জন্য তিনি তার মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করেছেন একঝাঁক নতুন মুখ, যাদের বিরুদ্ধে তেমন কোনো বদনাম নেই। তাদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর তো বটেই, জাতির প্রত্যাশাও আকাশচুম্বী। এমন একটি মন্ত্রিসভাকে গতিশীল ও কার্যকর করতে হলে প্রয়োজন একটি চৌকস দুর্নীতিমুক্ত ও জনবান্ধব আমলাতন্ত্র। কারণ তাদের ওপর অনেকাংশে নির্ভর করবে নতুন সরকারের সাফল্য ও ব্যর্থতা। মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের সঠিক পরামর্শ দেয়ার দায়িত্ব তাদের। বাংলাদেশে সাম্প্রতিককালে দেখা গেছে, যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের জন্য সবাই প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে থাকেন। এর ফলে প্রধানমন্ত্রীর ওপর চাপ বাড়ে জ্যামিতিক হারে, যা হওয়াটা তার প্রতি এক ধরনের অবিচার। তিনি তো দেশকে অনেক দিয়েছেন, এখন সময় হয়েছে কিছুটা হলেও তার ভার লাঘব করা। শেখ হাসিনা বর্তমানে একজন প্রধানমন্ত্রী নন, তিনি বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের একজন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর, একজন অনুকরণীয় প্রধানমন্ত্রী। রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ নীতি নির্ধারণের জন্য তাকে সময় দেয়া উচিত। দৈনন্দিন কর্মকা- দেখাশোনা করবে মন্ত্রীরা আর সরকারের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তারা। এসবের নিশ্চয়তা দিতে পারে একটি কার্যকর, চৌকস ও দুর্নীতিমুক্ত আমলাতন্ত্র।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত