প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ড. কামাল হোসেন প্রসঙ্গে একগুচ্ছ জিজ্ঞাসা

শিপ্রা রহমান : মুক্তিযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর কোন পথে, কোন উদ্দেশ্যে ড. কামাল (তৎকালীন ১৯৭০-এর নির্বাচনে জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগ মনোনীত বিজয়ী একজন মাননীয় সংসদ সদস্য হওয়ার পরও) ‘মুজিব নগর’ সরকারে যোগদান না করে শত্রুপক্ষ পাকিস্তানে গমন করেছিলেন? ইয়াহিয়া সরকারই বা কোন বিবেচনায় তাকে পাকিস্তানে মুক্ত অবস্থায় থাকতে দিয়েছিলো?

দুই. বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর পররাষ্ট্র মন্ত্রী পদে কয়েকদিনের জন্য বহাল থাকা অবস্থায় অথবা পরবর্তী সময়ের প্রবাসী জীবনে তিনি কেনো ওই বর্বর হত্যাকাণ্ডের কোনো প্রতিবাদ করেননি?

তিনি. যারা জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করে, তার নৃশংস হত্যাকাণ্ড কে বৈধতা দেবার চেষ্টা (ইনডেমনিটি) করেছে, মুক্তিযুদ্ধের উদ্দীপ্ত স্লোগান বর্জন করেছে, আরেকটি ১৫ আগস্ট ঘটাবার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব প্রদানকারী আওয়ামী লীগকে চিরতরে শেষ করার জন্য প্রকাশ্যে হুমকি দিয়েছে এবং সত্যি সত্যি ২১ আগস্ট ২০০৪ এর গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে ওই হুমকিকে বাস্তবে রূপ দেবার চেষ্টা করেছিলো তাদের পক্ষে কোন দরদে, কিসের বিনিময়ে ড. কামাল হোসেন গং আজকে মাঠে নেমেছেন? ওই অপরাজনৈতিক শক্তির জন্য স্বাধীন বাংলাদেশে কতোটুকু গণতান্ত্রিক অধিকারই বা প্রযোজ্য হওয়া সংগত?

চার. জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের প্রায় গোটা নেতৃত্বই ধানের শীষ প্রতীকে চলমান সংসদ নির্বাচনে (২০১৮, ৩০ ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য) মনোনীত হবার পরও কোন যুক্তিতে ড. কামাল হোসেন ধানের শীষের জন্য ভোট চাচ্ছেন? পাঁচ. নির্বাচন (২০১৪, ৫ জানুয়ারি) পণ্ড করার জন্য পেট্টলবোমা মেরে নিরীহ মানুষ মারার জন্য অভিযুক্ত একটি রাজনৈতিক শক্তিকে ক্ষমতাসীন করার জন্য কোন যুক্তিতে ড. কামাল হোসেন এখন মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছেন?

পাদটীকা : ১৯৭১ সালে অসহযোগ আন্দোলনে ঢাকার রাজপথে স্লোগান উঠেছিলো, ‘জিন্দাবাদে লাত্থি মারো, জয়বাংলা কায়েম করো’। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত