প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কখনো দেখিনি নির্বাচনের এক সপ্তাহ আগে প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায় : শারমিন মুরশিদ

কামরুল হাসান : ব্রতীর প্রধান নির্বাহী শারমিন মুরশিদ বলেন, নির্বাচনের এক সপ্তাহ বাকি, অথচ এই সময়ে প্রার্থিতা বাতিল আমার আঠারো বছরের অভিজ্ঞতায় কখনো দেখিনি। অনেকগুলো আসনে কোনো প্রতিপক্ষই থাকবে না। ফলে সেখানে একপেশে নির্বাচন হবে। ‘দ্য ডেইলি স্টার’ এর প্ল্যানিং এডিটর শাখাওয়াত লিটনের বিশেষ আয়োজন ‘ নির্বাচন সংলাপ-২০১৮’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কতো অদ্ভুত আমাদের এবারের নির্বাচন। আবার এবারের নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের তালিকাভুক্ত করতে গিয়ে নির্বাচন কমিশন অভিজ্ঞ বেশ কিছু পর্যবেক্ষকদের বাদ দিয়েছে। অন্যদিকে বেশ কিছু নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা সংযুক্ত হয়েছে যাদেরকে সত্যি বলতে আমরা চিনি না।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণের সুযোগ সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে এই নির্বাচন বিশ্লেষক বলেন, একটি সংশয় আমাদের মনে জাগে যে, কেন আমাদেরকে অবাধে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে দেওয়া হবে না। এই সংকুচিত হয়ে যাওয়ার জায়গাটা আমাদেরকে প্রশ্নের সম্মুখীন করছে।

তিনি বলেন, ২০০৮ সালের ডিসেম্বর মাসের নির্বাচনে বিভিন্ন দেশ এবং আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের ৫৯৩ জন নির্বাচন পর্যবেক্ষক বাংলাদেশে কাজ করেছিলেন। দেশীয় পর্যবেক্ষক ছিল ৭৫টি প্রতিষ্ঠানের এক লাখ ৫৯ হাজার জন। অথচ এবার নির্বাচন কমিশন থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যাচ্ছে নির্বাচন পর্যবেক্ষকের সংখ্যা ২৫-২৬ হাজারের বেশি হচ্ছে না। আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক সংখ্যাও কমে ১০০’র নিচে নেমে যাচ্ছে। তার দাবি, নির্বাচন পর্যবেক্ষণের বেশ কিছু নির্ধারক বিষয় থাকে যেগুলো নির্বাচন কমিশন নিজেই মানেনি। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক মহল যদি মনে করে আমাদের দেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াই নেই তাহলেও তারা নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে চায় না। উদাহরণ হিসেবে ২০১৪ সালের নির্বাচনের কথা টেনে বলেন, ওই নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আন্তর্জাতিক মহল সেভাবে আগ্রহ দেখায়নি।

এবার আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক কম আসার পেছনে মূলত দুটি কারণ দেখছেন শারমিন মুরশিদ। তার মতে একটি কারণ হলো, বাংলাদেশে নির্বাচন পর্যবেক্ষণকে তারা আর অগ্রাধিকার দিচ্ছেন না। তারা বলছেন, এমন অনেক জায়গা রয়েছে যেখানে মনোযোগ দেওয়া তাদের জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। স্থানীয় পর্যবেক্ষণ সংস্থাগুলোরও সক্ষমতা বেড়েছে। অন্য কারণ হতে পারে যে, এবারও বাংলাদেশে একটি একপেশে নির্বাচন হওয়ার আশঙ্কা করছেন তারা।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত