প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই দলের ইশতেহারেই ফুটবলের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার লক্ষ্য

রাকিব উদ্দীন : আর মাত্র ৭দিন পরেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এরই মধ্যে মাঠ পর্যায়ে প্রচারণার কাজে নেমে পড়েছে নির্বাচনে অংশ নেয়া দলগুলো। ইতোমধ্যে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলো। প্রতিশ্রুতি ও কর্মপরিকল্পনা নিয়ে ইশতেহারে দেশের ক্রীড়াঙ্গন কেমন গুরুত্ব পেয়েছে সেটা বিশ্লেষণ করে তুলে ধরার চেষ্টা আমাদেরসময়.কম-এর পাঠকদের জন্য।

নির্বাচনে প্রতিবারই অংশ নেন ক্রীড়াঙ্গনের কিছু তারকা খেলোয়াড়। এবারের নির্বাচনে দলগুলোও তাদের ইশতেহারে খেলাধুলাকে গুরুত্ব দিয়ে ইশতেহার সাঁজান। দেশের দুই প্রধান রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ জাতীয়বাদী দল (বিএনপি) তাদের ইশতেহারে ক্রীড়াঙ্গন নিয়ে স্পষ্টভাবে কোনো প্রতিশ্রুতি না দিলেও পরোক্ষভাবে ইঙ্গিত দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের ইশতেহারে বিগত ১০ বছরের অর্জন প্রকাশ করে ক্রিকেটসহ বিভিন্ন দিক উন্নয়নের কথা উল্লেক করেছে। অন্যদিকে বিএনপি প্রতিশ্রুতির কথা উল্লেখ করলেও ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি। ক্রীড়া ও সংস্কৃতিকে এক করে অনুচ্ছেদ প্রকাশ করেছে বিএনপি। দুদলের নির্বাচনী ইশতেহারেই দেশের ঐতিহ্যবাহী খেলা ফুটবলের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনার কথা উল্লেখ আছে।

দেখে নেওয়া যাক এবারের নির্বাচনে ক্রীড়াঙ্গনের জন্য দু’দলের ইশতেহারে যা থাকছে।

আওয়ামী লীগ :

৩.২৮ ক্রীড়া : ক্রীড়া চর্চা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যুবসমাজের শারীরিক ও মানসিক বিকাশ ঘটে। দেশের যুবসমাজকে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকাসক্তি থেকে মুক্ত এবং সুস্থ দেহ ও সাহসী মনের অধিকারী জনবল গড়ে তুলতে ক্রীড়া বিশেষ ভূমিকা রাখে। আওয়ামী লীগ প্রতিভাবান ক্রীড়াবিদ, যোগ্য ক্রীড়া প্রশিক্ষক, ক্রীড়ার অবকাঠামো ও ক্রীড়ামোদি জাতি গড়ে তুলতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং এ-লক্ষ্য অর্জনে কর্মতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

সাফল্য ও অর্জন :

বিশ্ব ক্রিকেটে বর্তমানে পুরুষ ও মহিলা দুই বিভাগেই বাংলাদেশ গৌরব জাগানো অবস্থান করে নিয়েছে। ফুটবলেও সার্ক অঞ্চলে ভালো অবস্থানে রয়েছে। হকিসহ অন্যান্য খেলার মান বৃদ্ধির জন্য সহায়তা জোরদার করছে।

সরকার কর্তৃক বিশেষ সহায়তার আওতায় ৩১টি খেলার ইভেন্টে তৃণমূল পর্যায় থেকে বাছাইকৃত প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালু করা হয়েছে।

  •  জাতীয় পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে।
  •  প্রাথমিক পর্যায়ে ফুটবলে ছেলেদের জন্য বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ও মেয়েদের জন্য বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ আয়োজন করার মাধ্যমে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে প্রতিভাবান খেলোয়াড় বের হচ্ছে।
  •  ৫,৫৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার।
  •  সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামকে আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রূপান্তর করে সেখানে আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচের আয়োজন করা হয়েছে।
  •  টেবিল টেনিস, তায়কোয়ান্দো, কারাতে, উশু এবং ভলিবল খেলার প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য বিকেএসপি-তে ক্রীড়া অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে।

লক্ষ্য ও পরিকল্পনা :

  •  বিশ্ব ক্রিকেটে বর্তমানে বাংলাদেশের গৌরব জাগানো অবস্থান আরও সুদৃঢ় করার সাথে সাথে ফুটবল হকিসহ অন্যান্য খেলা আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছানোর জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু করা হবে।
  • ক্রীড়া ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন, অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি, প্রশিক্ষণ সুবিধার সম্প্রসারণে পরিকল্পিত উদ্যোগ নেওয়া হবে।
  •  প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ স্তর পর্যন্ত প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিশু-কিশোর ও তরুণ-তরুণীদের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য বিকাশে খেলাধুলা ও শরীর চর্চাকে শিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হবে

বিএনপি :

২৮. ক্রীড়া ও সংস্কৃতি :

  •  দেশের ক্রীড়া সংস্থাগুলো কে রাজনীতির বাইরে পেশাগতভাবে গড়ে তোলা হবে।
  • ক্রিকেটকে সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়ার ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  • দীর্ঘদিন থেকে অবহেলিত ফুটবলকে আবার তার পুরনো মর্যাদায় ফিরিয়ে আনা হবে। রাষ্ট্রীয় আয়োজনে থানা পর্যায় পর্যন্ত ফুটবল লীগ আয়োজিত হবে। স্কুলে ফুটবলের চর্চা বাড়ানো হবে।
  • সারাদেশের স্টেডিয়ামগুলোকে খেলার উপযোগী করা হবে এবং নতুন খেলার মাঠ এবং স্টেডিয়াম তৈরি করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত