প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সমাজে এখন অনিয়মই নিয়ম : আহমদ রফিক

তানজিনা তানিন : প্রবল প্রতাপশালী বৃহৎ ব্যবসায়ীকুল ও শিল্পপতি শ্রেণি, নেপথ্যে রাজনীতির নিয়ন্ত্রক শক্তি হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেন প্রবন্ধিক ও ভাষাসংগ্রামী আহমদ রফিক। তিনি বলেন, গত চার দশকে বাংলাদেশে ক্ষমতাধর প্রভাবশালী রাজনীতিক সংগঠন নির্বিশেষে সামাজিক রীতিনীতি ও মূল্যবোধকে আদর্শিক পথে পরিচালিত করতে পারেনি। ফলে সমাজের একাধিক স্তরে দেখা দিয়েছে দুর্নীতি, সন্ত্রাস, নৈরাজ্যিক আচরণ। এখন অনিয়মই যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, সম্প্রতি জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক অঙ্গনে অর্থবিত্ত অর্জনের যে চালচিত্র প্রকাশ পেয়েছে তা মোটেই সামাজিক সুস্বাস্থ্যের লক্ষণ নয়। এ দূষণ গোটা পারিবারিক পর্যায়ে ক্রিয়াশীল। একদিকে রাজনৈতিক শক্তির দাপট ও অপপ্রকাশ, অন্যদিকে অনৈতিকতার প্রকাশ তারুণ্যে ও বয়স্ক উভয় ক্ষেত্রে সামাজিক স্বাস্থ্য নষ্ট করে চলেছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় রাজনৈতিক প্রশ্রয়ে সুবিচারের অভাব।

সম্প্রতি প্রকাশ্যে তরুণী লাঞ্ছনার ঘটনা কমে আসা স্বস্তির বিষয় হলেও এমন গুঞ্জন সর্বদা শোনা যায় যে, ধনস্ফীত শ্রেণিতে ও মধ্যবিত্তের পরিবারেও গোপন যৌন অনাচার নাকি অব্যাহত রয়েছে। তাছাড়া একই উদ্দেশ্যে বিদেশ ভ্রমণের কথাও শোনা যায়। বাংলাদেশি ধনাঢ্য শ্রেণিতে এজাতীয় দূষণ প্রকৃতপক্ষে যে কোনো উপায়ে অপরিমিত ধনসম্পদ সঞ্চয়ের পরিণাম বলে মনে করেন এই ভাষাসংগ্রামী।

আহমদ রফিক বলেন, এ জাতীয় ঘটনা ও পরিস্থিতি আমাদের সামাজিক অব্যবস্থার দীর্ঘস্থায়ী পরিণাম। এগুলো ধনবাদী ব্যবস্থার কুফলও বটে। সমাজ এখন আর সুপথে নেই। রাজনৈতিক ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া থেকে শুরু করে নির্বাচনের সর্বাধিক আচারে সততার নিতান্ত অভাব প্রকাশ পাচ্ছে। অর্থ ও ক্ষমতা এ দুটো বিষয় ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সমষ্টির আচরণ নিয়ন্ত্রণ করছে। এ আস্থা থেকে বেরিয়ে আসার উপায় খোঁজার ওপর জোর দেন তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ