প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘জনগণ নির্বিঘ্নে ভোট দিয়ে বাসায় ফিরতে পারবে কিনা সংশয় দেখা দিয়েছে’

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের সমাজতান্তিক দল- বাসদ’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বলেছেন, একাদশ নির্বাচন জনগণ নির্বিঘ্নে ভোট দিয়ে বাসায় ফিরতে পারবে কিনা সংশয় দেখা দিয়েছে। শনিবার সেগুন বাগিচার স্বাধীনতা হলে বাসদের নির্বাচনী ইশতেহার উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, রাজেকুজ্জামান রতন, ঢাকা-৭ আসনের প্রার্থী খালেকুজ্জামান লিপন, ঢাকা-৮ আসনের প্রার্থী শম্পা বসু, ঢাকা-১৭ আসনের প্রার্থী এস. এম. আহসান হাবিব বুলবুল, নারায়ণগঞ্জ- ৫ আসনের প্রার্থী আবু নাঈম খান বিপ্লব, বাসদ কেন্দ্রীয় বর্ধিত পাঠচক্র সদস্য নিখিল দাস, আবদুর রাজ্জাক, রওশন আরা রুশো, ইমরান হাবিব রুমন, প্রগতিশীল আইনজীবী ফ্রন্টের সদস্য সচিব জহিরুল ইসলাম মোল্লা।

সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রতিদিন সারাদেশে বাসদের প্রার্থীদের নির্বাচনী জনসভা ও মিছিলে আওয়ামী লীগের সমর্থরা হামলা ও ভাংচুর করেছে। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা বাসদের খুলনা-৩ আসনের প্রার্থী নান্টুর খালিশপুরের জনসভা, পটুয়াখালী-৪ আসনের অ্যাডভোকেট জাহিরুল আলমের জনসভার মাইক ভাংচুর, চাঁদপুর-৩ আসনের প্রার্থীর জনসভায় হামলা, ঢাকা-১৭ আসনের প্রার্থী বুলবুল, সাতক্ষিরা- ১ আসনের আজিজুল ইসলামের জনসভায় হামলা ও মাইক ভাংচুর, ঢাকা-৬ আসনের প্রার্থীর মিছিলে হামলা ও পিরোজপুরের প্রার্থী তপন বসুর চেম্বারে হামলা করেছে।

তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমরা নির্বাচিত হলে পার্লামেন্টের ভিতরে ও বাইরে জনস্বার্থে করণীয় কাজ ও দাবি আদায়ের সংগ্রাম জোরদার করবো- যাতে সরকারের যে কোন গণবিরোধী পদক্ষেপকে মোকাবেলা করে তা থামানো যায়। যে আলামত দেখা যাচ্ছে তাতে ভোট কেন্দ্র দখলের নির্বাচন যদি হয়, তাতে আমরা পার্লামেন্টে যেতে না পারলেও দাবি আদায়ের সংগ্রাম আমরা দলগত এবং জোটগতভাবে চালিয়ে যাবো। আন্দোলনকে ধাপে ধাপে এগিয়ে নিয়ে এবং ক্রমাগত চাপবৃদ্ধি করে গণদাবি আদায়ে সাফল্য আনার ও সংগঠন-আন্দোলন বিকশিত ও শক্তিশালী করার চেষ্টা চালাবো যাতে ভবিষ্যতে রাষ্ট্র শাসন ক্ষমতা দখলের পথ সুগম হয়।

তিনি আরও বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে যাচ্ছে ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮। এই মাস আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের মাস। স্বজন হারানোর অসীম বেদনা, জীবনবাজী রাখা অসম সাহসী লড়াই শেষে আমরা ১৯৭১ সালের এই মাসে স্বাধীনতার বিজয় পতাকা উড়িয়েছিলাম। এখন স্বাধীনতার ৪৮ বছর হতে চললো। জনগণের ক্ষমতায়ন অর্থে গণতান্ত্রিক শাসন প্রতিষ্ঠা তো দূরের কথা ভোটার জনগণ ভোটকেন্দ্রে যেতে পারবে কিনা, গেলে ভোট দিতে পারবে কিনা, ভোট কেন্দ্রগুলো ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনের সময়কার চেহারা নেবে কিনা, হামলা-মামলা, গ্রেফতার বাণিজ্য, ভীতিকর পরিবেশ এইভাবে চলতে এবং বাড়তে থাকবে কিনা এইসব আতঙ্ক ও সংশয় বাড়ছে দিনকে দিন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত