প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানিকগঞ্জ-২ আসনে একই জোটে কন্ঠশিল্পী মমতাজসহ তিন প্রার্থী থাকায় তৃণমূলে অস্বস্তি

হ্যাপি আক্তার : মানিকগঞ্জ-২ আসনের টানাপোড়েন কাটেনি নিজ মহাজোটের আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি এবং যুক্তফ্রন্টের উন্মুক্ত নির্বাচন হচ্ছে আসনটিতে। নিজ দলের প্রতীক নিয়ে ভোট চাইছেন প্রার্থীরা। এক জোটে তিন প্রার্থী থাকায় অস্বস্তিতে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা ও ভোটার। তবে হাইকমান্ড সিদ্ধান্ত দিলে, শেষ পর্যন্ত একজন ভোটে থাকার কথা জানিয়েছেন প্রার্থীরা। সূত্র : যমুনা টেলিভিশন।

মানিকগঞ্জ-২ আসনে দ্বিতীয়বারের মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন কন্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম। যদিও এই আসনে আলাদাভাবে প্রার্থী দিয়েছে জাতীয় পার্টি ও বিকল্প ধারা। লাঙ্গল আর গোলাপ প্রতীক দিয়ে শরিক প্রার্থীরা সমান তালে প্রচার চালাচ্ছেন ভোটের মাঠে।
মানিকগঞ্জ-২ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মমতাজ বেগম বলেছেন, পরিবেশ পরিস্থিতির দেখে শেষ পর্যন্ত নৌকা ও ধানের শীষের পাল্লাটা যখন ভাড়ি হবে, তখন মহাজোটের সমর্থকরা আমাকেই ভোট দেবেন।

২০০৮ সালের নির্বাচনে বিএনপিকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছিলে জেলার জাতীয় পার্টির সভাপতি এস এম আব্দুর মান্নান। আবারও তিনি লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। গোলাপ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যুক্তফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী গোলাম ছারোয়ার মিলন। আলাদা প্রতীকে মাঠে থাকলেও চোখ তাদের হাইকমান্ডে।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী এস এম আব্দুল মান্নান বলেছেন, মাঠে যে সাড়া পাচ্ছি তাতে দৃঢ় বিশ্বাস, নির্বাচন করলে বিজয়ী হবো।
মানিকগঞ্জ-২ আসনের যুক্তফ্রন্টের প্রার্থী গোলাম ছারোয়ার মিলন বলেছেন, একক প্রার্থীর দিকে আমরা যেতে পারি, সেই সুযোগ এখনো আছে। তানা হলে জনগণ যাকে ইচ্ছা ভোট দেবে। কারণ আমরা তো নির্বাচনী মাঠে নেমে গেছি। প্রতিদ্বন্দ্বী তিন জনেরই রয়েছে এই আসনে সংসদ সদস্য হওয়ার অভিজ্ঞতা।

আসনটিতে প্রচার চালাচ্ছেন ধানের শীষের একক প্রার্থী। অতীতে তারও সংসদে প্রতিনিধিত্ব করার অভিজ্ঞতা রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত