প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমজাদ হোসেনের কর্মের প্রতি সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদন

বিনোদন প্রতিবেদক : চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেনের বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্মের প্রতি জাতির পক্ষ থেকে শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়েছে। জাতীয় শহীদ মিনারে তাঁর মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিক অঙ্গনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আমজাদ হোসেনের মরদেহ শহীদ মিনারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে এই গুণী নির্মাতার প্রতি শ্রদ্ধা জানান মানুষ। এরপর তাঁর মরদেহ এটিএন বাংলায় নেওয়া হয় এবং সেখান শেষে এফডিসিতে নেওয়া হয়। এফডিসিতে জানাযা শেষে তাকে চ্যানেল আইতে নেওয়া হবে। এখানে জানাযা শেষে আজ বিকেলে তার গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে রোববার সকাল ১০টায় শেষ জানাজার পর বাবার কবরেই সমাহিত হবেন আমজাদ হোসেন।

সেখান থেকে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি জামালপুরে নেয়া হবে। সেখানে শেষবারের মতো জানাজা শেষে তার বাবা নুরউদ্দিন সরকারের কবরে সমাহিত করা হবে। আমজাদ হোসেনের পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

গত ১৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৫৭ মিনিটে মারা যান আমজাদ হোসেন। বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে তার চিকিৎসার বকেয়া বিলসহ মরদেহ দেশে আনতে সময় লেগে যায় এক সপ্তাহ। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায় আমজাদ হেসেনের মরদেহবাহী বিমান।
আদাবরে আমজাদ হোসেনের নিজ বাসায় আত্মীয় স্বজনরা তাকে শেষবারের মতো দেখতে আসেন। রাতেই তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয় স্থানীয় বায়তুল আমান জামে মসজিদে। এরপর মরদেহ রাখা হয় বারডেম হাসপাতালের হিমাগারে।

উল্লেখ্য, মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হওয়ায় গত ১৮ই নভেম্বর রাজধানীর তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আমজাদ হোসেনকে। হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। শুরু থেকেই তাকে কৃত্রিম উপায়ে শ্বাসপ্রশ্বাস দিয়ে বাঁচিয়ে রাখা হয়। বাংলাদেশের কিংবদন্তি এই নির্মাতার শারীরিক অসুস্থতার খবর শুনে হাসপাতালে ভর্তির তিন দিনের মাথায় তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়ার আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর আমজাদ হোসেনের উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাহিরে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঢাকার পর ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে টানা ১৬ দিন চিকিৎসার পর গত ১৪ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৫৭ মিনিটে মারা যান আমজাদ হোসেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত