প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাপার সভায় দুর্বৃত্তদের হামলা; আহত ৩০

মো. ইউসুফ আলী বাচ্চুঃ চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীর প্রচার সভায় দু’দফা দুবৃত্ত হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় চাম্বল মাদরাসা এলাকায় প্রথম দফা ও পরে সোয়া পাঁচটার দিকে চাম্বল বাজারে দ্বিতীয় দফা হামলার ঘটনা ঘটে। জাতীয় পার্টির অভিযোগ, চাম্বল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুজিবুল হকের নেতৃত্বে একদল দুবৃত্ত এ হামলা চালিয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিকেলে বাঁশখালী চাম্বল বাজারে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীর মতবিনিময় সভা হওয়ার কথা ছিল। এ নিয়ে সকাল থেকে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছিল। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে মাহমুদুল ইসলাম পক্ষে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠান স্থলে যাওয়ার পথে চাম্বল মাদরাসা এলাকায় হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় প্রায় সাত রাউন্ড গুলির শব্দ পাওয়া যায়।

হামলার পরও চাম্বল বাজারে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী মতবিনিময় সভা শুরু করেন। সভার শেষ দিকে বিকেল সোয়া পাঁচটার দিকে আবারো ওই সভা লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ শুরু হয়। এসময় অন্তত ৩০ জন নেতাকর্মী আহত হন।

মাহমুদুল ইসলামের ব্যক্তিগত সহকারী মো. জোবায়ের চৌধুরী বলেন, বৃহস্পতিবার চাম্বল বাজারে লাঙ্গল প্রতীকের কর্মীদের একটি মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু চাম্বল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুজিবুল হক আমাদের মতবিনিময় সভা করতে বাধা দেন। ফলে আমরা গতকালের মতবিনিময় সভা স্থগিত করে আজ বিকেলে করার সিদ্ধান্ত নেই। আজকের সভার বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করি।

তিনি আরো বলেন, কিন্তু আমাদের মতবিনিময় পণ্ড করতে সকাল থেকেই চেয়ারম্যান মুজিবুল হকের নেতৃত্বে এক দল দুবৃত্ত চাম্বল বাজারে অবস্থান নেয়। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে মিছিল নিয়ে আমরা চাম্বল বাজারে যাওয়ার সময় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা চাম্বল মাদরাসা এলাকায় প্রথম দফায় আমাদের ওপর হামলা করে। এসময় প্রায় সাত রাউন্ড গুলিবর্ষণ করা হয়।

পরে আমরা বাধা উপেক্ষা করে চাম্বল বাজারে আমাদের নির্ধারিত মতবিনিময় সভা শুরু করি। প্রায় আধাঘণ্টা সভা চলার পর সন্ত্রাসীরা আবারো আমাদের সভা লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। এসময় প্রায় ৭০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করা হয়। এতে আমাদের অন্তত ৩০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। যাদের অনেকে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গোলাগুলির সময় মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীসহ শত শত নেতাকর্মী আটকা পড়েন।

এ বিষয়ে বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সব রকম ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, একাদশ সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে শক্তির বিচারে দেশের চারটি বড় দলই পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়ছে। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বর্তমান এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচন করছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক সিটি মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ