প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী সম্প্রদায়ভুক্তরাই দেশে অবাধে ব্যবসায় করছে : মিন্টু

জুয়েল খান : এফবিসিসিআই- এর সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু বলেছেন, যে ব্যবসায়ীরা নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন তাদের অধিকাংশই প্রকৃত ব্যবসায়ী না। তারা কেউ টুকটাক ব্যবসায়ী, আর কেউ সরকারি দলের সাথে তাল মিলিয়ে রাষ্ট্রকে লুঁট করছে। এখন আওয়ামী সম্প্রদায়ভূক্তরাই দেশে অবাধে ব্যবসা করছে।

২০ ডিসেম্বর রাতে ডিবিসি নিউজের এক আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, এখন শুধু দেশে একটা পক্ষ স্বাধীনভাবে ব্যবসায় করে আর সেটা হলো, আওয়ামী সম্প্রদায়ের লোক। এখন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আওয়মীরাই ভাগ করছে। একটা ধারণা এমন হয়েছে, যে ব্যবসায়ী সরকারের যতোবেশি তোষামোদ করবে সেই ব্যবসায়ী ততোবেশি সুযোগ সুবিধা পাবে, ব্যাংকের টাকা নিতে পারবো। মোটকথা ব্যবসায়ীরা আরো বেশি বড়লোক হয়ার জন্য সরকারের তোষামোদ করছে।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে ব্যবসায়ীরা সংবর্ধনা দিলেন এবং নৌকায় ভোট চাইলেন। কিন্তু ব্যবসায়ীদের তো নৌকায় ভোট চাওয়ার কথা না। অতএব এদেরকে ব্যবসায়ী বলা যাবে না। এদের অনেকই গান গাইছে এই গান গাওয়া আর নৌকায় ভোট চাওয়া এটা অতীতে হয়নি। আমি মনে করি প্রতিটি প্রতিটি ক্ষেত্রে দলীয়করণ করা হচ্ছে। প্রতিটি দেশের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সরকারি এবং বেসরকারি যে প্রতিষ্ঠানগুলো জনকল্যাণে প্রতিষ্ঠিত এগুলো জনকল্যাণে কাজ করার কথা, এগুলোকে ধ্বংস করার একটা নীলনকশা তৈরি করা হচ্ছে। যেমন আমাদের পুলিশ বাহিনী ধ্বংস, জুডিশিয়ারিতে আমরা বিচার পাচ্ছি না। এরকম রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে যেগুলো বেসরকারি খাতের প্রতিষ্ঠান সেগুলোকে ধ্বংস করার একটা পাঁয়তারা করছে সরকার।

তিনি জানান, আমি গত দুইবারের নির্বাচিত এফবিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট। কিন্তু আমাকে প্রধানমন্ত্রীর ওই সভায় ডাকা হয়নি। এটা সম্পুর্ণ রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত এবং নিরপেক্ষ এফবিসিসিআই তার নিরপেক্ষতা হারিয়েছে। কারণ অতীতে যখনই এফবিসিসিআই প্রধানমন্ত্রীকে কথা বালার সুযোগ দিয়েছে বা আমন্ত্রণ জানিয়েছে তখনই বিরেধী দলকে বা বিরোধীদলীয় নেত্রীকে সুযোগ দিয়েছে কিন্তু এবার তা হয়নি। ইতিহাসের কোনো কালে এফবিসিসিআই শুধু একপক্ষ অবলম্বন করেনি। কিন্তু এবারে শুধু প্রধানমন্ত্রীকে দাওয়াত করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত