প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শারমিনের আলোয় আলোকিত হচ্ছে বাউল ভুবন

জাগো নিউজ : কৈশোর পেরোনোর ছাপ কাটেনি এখনও। সবে কলেজ আঙিনায় পা রেখেছে। তাতে কী! রক্তে যার সুরসুধা মেশানো, তাকে কী বয়সের ফ্রেমে মূল্যায়ন করা যায়? সুরে সুরে যার অস্তিত্বের প্রকাশ, সে তো গান পাগলদের হৃদয়াসনে ঠাঁই নেবেই।

বলছিলাম বাউলশিল্পী শারমিনের কথা। তারুণ্যের ঢেউয়ে ভেসে বেরোনোর বয়স তার। ভাসছে বটে, তা গানকে সঙ্গী করেই। মাত্র দু’বছরের সৃষ্টিকথা। আর তাতেই যেন হাজারো গল্পকথা। বাউলগান ভালোবাসে অথচ শারমিনে মুগ্ধ হয়নি, এমন সময়ে এমন মানুষ পাওয়া ভার। সুরকে ধারণ করছে মননে-মগজে। আর অন্তরে যা ধারণ করছে, তাই ঢেলে দিচ্ছে গানের মঞ্চে। সুরের ধারায় ধ্যান করে সৃষ্টি উল্লাসে মাতোয়ার শারমিন। শারমিনের গানে মতোয়ারা ভক্তরাও।

২০১৬ সালে আড়ং ডেইরি-চ্যানেল আই বাংলার গানে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরে শারমিন। এখন সে মুকুটে জৌলস যেন আরও ছড়াচ্ছে। যেখানে গাইছেন, সেখানেই বিশেষত্বের সাক্ষর রাখছেন। মঞ্চ মাতাচ্ছেন বিখ্যাত সাধকদের গানে গানে। টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতেও কদর বাড়ছে সমান তালে। ইউটিউব চ্যানেলে যেন এই তরুণ শিল্পীর জয়জয়কার। ভক্তরা হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন ‘শারমিন’ নামে সার্চ দিতে। শারমিনের কোনো গান অনলাইনে আপলোড করা মানেই লাখ লাখ ভিউয়ারের দেখা মেলা।

মৌলিক গানেও নিজের সফলতার সাক্ষর রাখছে শারমিন। ‘তুই ব্যথা দিয়ে চইলা গেলিরে, নিঠুর দরদিয়া/ আমি ভুল কইরাছিরে বেইমান তোরে মন দিয়া’ গানটি গেল ১১ ডিসেম্বর ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি পেয়েছে। আর তাতেই লাখ লাখ শ্রোতা।

শারমিনে মজেছেন সুনামধন্য বাউলেরাও। বাউল সম্রাজ্ঞী মমতাজও শারমিন বন্দনায় মশগুল। শারমিনকে ভালোবাসার আধারে ডুবিয়ে রেখেছিলেন ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুও। শারমিনের অসংখ্য গানে গিটার বাজিয়ে বাচ্চু শারমিনের প্রতি অনুরক্ত প্রকাশের প্রমাণ রেখে গেছেন। শারমিনের বাবা হুমায়ন কবিরের লেখা আর সুরে এটিই তার প্রথম মৌলিক গান। ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের (ডিএমএস) প্রযোজনায় ‘ভুল কইরাছিরে বেঈমান’ শিরোনামে গানটি বাজারে আসে।

শারমিন সম্পর্কে মূল্যায়ন করছিলেন লেখক, গবেষক, সুরাকার শাকির দেওয়ান। শাকির দেওয়ানের লেখা বেশ কয়েকটি গানেও কণ্ঠ দিয়েছেন শারমিন। লেখক শাকির দেওয়ান বলেন, শারমিনের কণ্ঠ-ই ওর বিশেষত্ব। সুরে এত তেজ! তা অন্য কারো কণ্ঠে পাওয়া যায় না। শৈশব থেকেই সুর তরঙ্গে খেলছে বলে ওর মাঝে গানের দরদী ভাব সহজেই ফুটে ওঠে।

শারমিনের বাবা হুমায়ুন কবির নিজেও বাউলশিল্পী। বাবা-মায়ের ঐকান্তিক চেষ্টাতেই শারমিনের গানের ভুবনে পথচলা। হুমায়ুক কবির বলেন, আমরা ছোট বেলা থেকেই ওর মাঝে বিশেষ কিছু দেখছিলাম। এখন তার প্রমাণ পাচ্ছি। ও আমাদের মুখ উজ্জ্বল করছে। দিন যাচ্ছে ভক্ত বাড়ছে। মেয়ে বাউল ভুবনে সামান্য আলো ফেলতে পারলেই আমাদের সাধনজীবন ধন্য হবে।

ভক্ত মনে বিরাজ করে সুর সাধনায় আরও নিমগ্ন থাকতে চায় শারমিন। বলেন, শ্রোতা, ভক্তের ভালোবাসা পাচ্ছি বলেই গানের প্রতি ব্যাকুলতা বাড়ছে। প্রথম মৌলিক গানেও ব্যপক সাড়া পেয়েছি। গানের মধ্য দিয়েই মানুষের আরও কাছে যেতে চাই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত