প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জামায়াত সঙ্গে থাকায় ড. কামালকে জবাবদিহি করতে হবে : ড. জিয়া

কামরুল হাসান : ড. কামাল একজন নিরপেক্ষ ক্লিন ইমেজের লোক, এবং তার কাছে সকলের একটি প্রত্যাশা ছিল যে, তিনি যখন ঐক্যফ্রন্টের মাধ্যমে বিএনপির হাত ধরেছেন তখন তিনি হয়তো বিএনপিকে জামায়াতমুক্ত করবেন। কিন্তু পরিতাপের বিষয় তার ঐক্যে এই নির্বাচনে জামায়াত ভোটের পরিসংখ্যানের তুলনায় নমিনেশন বেশি পেয়েছে। এর জন্য ড. কামাল তার দায় এরাতে পারেন না এবং এ জন্য তাকে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। গত বুধবার ‘নিউজ টোয়েন্টিফোর’ টেলিভিশন চ্যানেলে এক টকশোতে এ মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান।

তিনি বলেন, সাধারণ জনগণের মনে একটা ধারণা জন্মেছিলো যে, যেহেতু ইতোমধ্যে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে এবং জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল হয়েছে সেহেতু বিএনপি এবার জামায়াত ছাড়বেন এবং নতুন ভাবে তাদের যাত্রা শুরু করবে। এবার বিএনপির সামনে একটা সুযোগ এসেছিলো বিএনপির মধ্যে বিদ্যমান ঝামেলাগুলোকে ঝেড়ে ফেলে বিএনপি একটি নতুন মোড়কে সাজতে সক্ষম হবে এবং একাজের মূল ভূমিকা পালন করবেন ড. কামাল হোসেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে দেখা গেলো বিএনপি উল্টো কাজটি করেছে, জামায়াতকে বাদ দেয়া তো দূরের কথা বরং জামায়াতের দেশে যা ভোট আছে তার তুলনায় জামায়াতকে বেশি আসনে মনোনয়ন দিয়েছে। কামাল হোসেন এ ব্যপারে চুপ রইলেন।

তিনি অরো বলেন, আওয়ামী লীগ যেহেতু যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে দিয়েছে সেহেতু জামায়াতকে ছাড়া বিএনপির জন্য সহজ হয়েছিলো। বিএনপি যখন রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিলো তখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তো দূরের কথা তারা জিয়া হত্যার বিচারটিও করেনি উল্টো আওয়ামী লীগ যখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করলো তখন বিএনপি এ বিচার সমর্থন করলেও বিচারের নিরোপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। তার মতে ১৯৯০ সাল থেকে এদেশে গণতান্ত্রিক ধারা শুরু হয়েছে এবং সব দলের দায়িত্ব এই গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখা। শুধু রাজনীতির জন্য রাজনীতি না জনগণের জন্য রাজনীতি করা উচিৎ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত