প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাণিজ্যিক সারোগেসি নিষিদ্ধ করে ভারতের লোকসভায় বিল পাশ

বাণিজ্যিক সারোগেসি নিষিদ্ধ করে ভারতের লোকসভায় বিল পাশ

লিহান লিমা: বাণিজ্যিকভাবে সারোগেসি নিষিদ্ধ করে বুধবার ভারতের লোকসভায় ‘সারোগেসি আইন ২০১৬’ পাশ করা হয়। এই আইন শুধুমাত্র সন্তানধারণে অক্ষম ভারতীয় দম্পতিকে নিকটাত্মীয়দের মাধ্যমে সারোগেট পদ্ধতিতে সন্তান নেয়ার অনুমোদন দেয়।

সারোগেসি আইন ২০১৬ অনুযায়ী, কোন দম্পতি যদি সারোগেট পদ্ধতিতে সন্তান নিতে চান তবে তাদের বৈবাহিক সম্পর্ক অবশ্যই ৫ বছর হতে হবে এবং ডাক্তার কর্তৃক সন্তান উৎপাদনে অক্ষমতার মেডিকেল সনদ থাকতে হবে। এছাড়া সমকামী, একা, বিয়ে ছাড়াই একসঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এমন দম্পতি ও যাদের ইতোমধ্যেই একটি সন্তান রয়েছে তারা সারোগেসির মাধ্যমে সন্তান গ্রহণের অনুমোদন পাবেন না।

লোকসভায় পাশকৃত এই আইন অনুযায়ী, শুধুমাত্র ভারতীয়রাই নির্দিষ্ট শর্তের আওতায় সারোগেসি পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারবেন। কোন বিদেশি সারোগেসির অনুমতি পাবেন না। বিলের শর্তানুযায়ী, ২৩ থেকে ৫০ বছর বয়সী নারী এবং ২৬ থেকে ৫৫ বছর বয়সী পুরুষরা সারোগেট পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারবেন। এই পদ্ধতিতে জন্ম নেয়া সন্তানের ওপর ওই দম্পতির আইনগত অধিকার থাকবে। সেই সঙ্গে একজন নারী কেবলমাত্র একবারই সারোগেট পদ্ধতিতে সন্তানের জন্ম দিতে পারবেন। এদিকে এই আইনের সমালোচনা করে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কাকলি ঘোষ বলেন, ‘সমকামী দম্পতিদের সারোগেট পদ্ধতিতে সন্তান দেয়ার অনুমতি দেয়ার প্রয়োজন ছিলো।’ অন্যদিকে বিজেডির ভারথুহারি মাহতাব বলেন, সরকারকে এটি নির্দিষ্ট করতে হবে নিকটাত্মীয় বলতে কারা বোঝায়।

২০১৬ সালের আগস্টে ভারতে গর্ভ ভাড়া নিয়ন্ত্রণে এই আইন মন্ত্রীপরিষদে পাশ হয়। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, কোন আইন না থাকায় ভারত বিদেশীদের গর্ভ ভাড়া নেয়ার বাজার হয়ে উঠেছিলো। এর ফলে সারোগেট মায়ের স্বাস্থ্যঝুঁকি, প্রত্যাখ্যাত শিশুর জন্মের মত নানা অনৈতিক ঘটনা নিত্যনৈমেত্তিক হয়ে পড়ে। ২০১৬ সালের নভেম্বরে সারোগেসি আইন লোকসভায় উত্থাপন করা হয় এবং ২০১৭ সালে জানুয়ারিতে এটি স্বাস্থ্য ও পারিবারিক নিরাপত্তা বিষয়ক পার্লামেন্টের স্ট্যান্ডিং কমিটিতে তোলা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত