প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচনের পূর্বে প্যারামিলিটারি মোতায়েনের খবর বিশ্বগণমাধ্যমে

লিহান লিমা: নির্বাচনী প্রচারণার সময়ই দেশজুড়ে ২০ হাজারেরও বেশি প্যারামিলিটারি মোতায়েনের খবর আলোড়ন তুলেছে বিশ্বগণমাধ্যমে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের আগে প্রাণঘাতি সহিংসতা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কাকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়। ইতোমধ্যেই প্রচারণার সময় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মধ্যকার সংঘর্ষে গত এক সপ্তাহে অন্তত ৬ জন নিহত হয়েছেন।

এএফপি জানায়, বিএনপি অভিযোগ করেছে, নির্বাচন কমিশন যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়ায় ক্ষমতাসীন দলের কর্মীরা তাদের প্রার্থী এবং সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে। ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ সালাউদ্দিন এএফপিকে আরো বলেন, ‘আমাদের চার কর্মী নিহত হয়েছেন এবং হাজারো আহত হয়েছেন। প্রচারণার সময় ৩০০ প্রার্থীর মধ্যে ১৫২জন হামলার শিকার হয়েছেন।’

ভয়েস অব আমেরিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, স্বৈরতান্ত্রিক শাসনের অভিযোগ থাকা শেখ হাসিনা চার বারের মত ক্ষমতায় থাকার রেকর্ড গড়তে যাচ্ছেন। অন্যদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া জালিয়াতির অভিযোগে কারাবন্দি আছেন।

এদিকে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস এর ওয়েবসাইটে বলা হয়, নির্বাচনে পূর্বে বাংলাদেশে বিরাজ করছে ধর-পাকড়ের পরিবেশ। সংস্থাটি জানায় বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহিনী বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের আটক ও ধাওয়া করছে। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের আগে হুমকির মুখে পড়েছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা। তারা যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপিয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য, ভারত, চীন ও অন্যান্য দেশগুলোকে অবাধ এবং সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য হাসিনাকে চাপ প্রয়োগ করার আহ্বান জানায়।

হিউম্যান রাইটস এর এশিয়া বিষয়ক নির্বাহী ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার কৌশলগতভাবে স্বাধীন ও বিরোধী মতামতকে দমন করছে, যাতে কিনা রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ নিতে ক্ষমতাসীন দলকে কোন বাধার সম্মুখীন হতে না হয়। প্রধান বিরোধী দলের সমর্থকদের আটক, হত্যা, গুম করা সহ ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে যা কিনা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের বার্তা নয়। ওয়েব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত