প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশের কারাগারে গ্রেপ্তারকৃতরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

রবিন আকরাম: বাংলাদেশে গ্রেপ্তারের শিকার অনেকেই কারাগারে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছেন মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। নির্যাতিত বন্দিরা অভিযোগ করেছেন, কারাগারে তাদের ঘুষিসহ প্লাস্টিক পাইপ কিংবা আঁখের কা- দিয়ে মারা হয়েছে।

সম্প্রতি নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ৫ই মার্চ বিএনপি নেতা জাকির হোসেন মিলন (৩৮) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন শেষে ফেরার সময় গ্রেপ্তার হন। তাকে শাহবাগ থানায় নিয়ে আসা হয়। ১১ই মার্চ তাকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেসময় তিনি তার স্বজনদের জানান, তাকে ব্যাপক নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি তার দুই সন্তানকে দেখে রাখার অনুরোধ করে বলেছিলেন, আমি জানিনা আমার কি হবে। তার পরদিনই তিনি জেলে মারা যান। তার পরিবার জানিয়েছে, তার মরদেহে কালো দাগ দেখতে পেয়েছেন এবং তার আঙুলের নখগুলো তুলে ফেলা হয়েছিল।

মিডিয়ার স্বাধীনতা নিয়ে সুশীল সমাজের একজন সদস্য হিউম্যান রাইটস ওয়াচকে বলেছেন, আমি মনে করি না আমরা কখনো এত খারাপ অবস্থায় ছিলাম। এমনকি আগের সেনাশাসন চলাকালীনও মানুষের কথা বলার অধিকার ছিল। সাংবাদিকদের রুদ্ধ এবং সাধারণ নাগরিকদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা হরণ ও সরকারের বিরোধী ও সমালোচকদের দমনে কর্তৃপক্ষ নানা আইনের ইচ্ছামতো ব্যবহার করছে। সরকার সমালোচকদের গ্রেপ্তারে তথ্য প্রযুক্তি আইন ব্যবহার করা হয়েছে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে হওয়া শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ফেসবুকে প্রকাশ করায় চিত্রগ্রাহক ও অধিকারকর্মী শহিদুল আলমকে ৫ই আগস্ট গ্রেপ্তার করা হয়। ১০৭ দিন আটক থাকার পরে তিনি মুক্তি পেয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, কারাগারে পুলিশ তাকে নির্যাতন করেছে। ফেসবুক পোস্টের কারণে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মইদুল ইসলামও।

এছাড়া বিবৃতিতে সংস্থাটি জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, চীন ও অন্যান্য রাষ্ট্রের প্রতি প্রচারণাকালীন সহিংসতা বন্ধ এবং অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন নিশ্চিতের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর চাপ প্রয়োগের আহ্বান জানায়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত