প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচন না করতে পারলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে : পুলিশের উদ্দেশে ড. কামাল

এস এম নূর মোহাম্মদ : জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড.কামাল হোসেন সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, অনেক ক্ষমতায় থেকেছেন, অনেক ভোগ করেছেন। ভোগেরও সীমা থাকা উচিৎ। বুধবার সুপ্রিম কোর্টে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ মানবাধিকার ফেডারেশন এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

ড. কামাল বলেন, তথাকথিত নির্বাচনে আপনারা যদি ৩০০ সিট চান, তাহলে বলেন, আমরা দিয়ে দেই। আপনারা আরও পাঁচ বছর থাকবেন এটাতো বলেই যাচ্ছেন। এভাবে চাওয়ার থেকে আমাদের কাছে বলে নিয়ে যান। বলেন যে, আরও পাঁচ বছর থাকি আপনারা হাত তুলে মেনে নেন। আমি বলবো সবাই মেনে নিয়েছে। এইভাবে নির্বাচনের নামে প্রহসনের মধ্য গিয়ে ৩শ লোককে নির্বাচিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য তো পাঁচ বছর থাকা। অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করার জন্য সময় এভাবেই বৃদ্ধি করা যায় তাহলে আলহামদুলিল্লাহ। সবাই বলবে আরও পাঁচ বছর থেকে অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করি এটা নিয়মে পরিণত হবে।

তিনি বলেন, এখন যারা ক্ষমতায় আছেন, তাদেরকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই আপনারা কোন ক্ষমতার বলে শাসন করছেন? এখন যেটা করছেন একদমই সংবিধান পরিপন্থী কাজ করছেন। এধরনের শাসন আমি কখনো দেখিনি। এটাকে যদি সুশাসন বলা হয় তাহলে মিথ্যা বলা হবে। আজকে কেউ যদি দাবি করে এদেশে সুশাসন আছে তাহলে আমি বলবো সে মিথ্যুক। কি বলবো এসব দেখতে হচ্ছে শুনতে হচ্ছে। এগুলো আমার জন্য শাস্তি।

তিনি আরও বলেন, যারা মনে করবে আমরা ক্ষমতা পেয়ে গেছি, মানবাধিকারের কথা মানতে হবে না। পুলিশকে এভাবে অপব্যবহার করতে থাকেন, বিশ্বাস করেন আমার কি হয় না হয় সেটা না আপনাদের বিচার হবে, শাস্তি হবে। এখানে এবং পরকালে। এখানে যদি কোন কারণে পার পেয়ে যান, পরকালে আপনারা পার পাবেন না ইনশাআল্লাহ। সেটা মনে রাইখেন।

কামাল হোসেন বলেন, ভোটের অধিকার সবাই ভোগ করুক। স্বাধীনভাবে নির্ভয়ে তারা যেন ভোট দিতে পারেন। স্বাধীন দেশে যদি নাগরিকেরা ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয় তাহলে সেটি হবে স্বাধীনতার উপর আঘাত। এ আঘাত দেওয়া উচিত না। এ আঘাত দেশদ্রোহীতার শামিল। কেউ যদি মনে করে দেশদ্রোহীতা করে পার পাওয়া যায় তা ঠিক না। আজ হোক কাল হোক তার বিচার হবে।

পুলিশকে অপব্যবহার বন্ধ করার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন না করতে পারলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে।অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সহ-সভাপতি ড. গোলাম রহমান ভূইয়া।

সংগঠনটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোটেক ড. মোহাম্মদ শাহজাহানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন- সাবেক মন্ত্রী ও সাবেক সেনা প্রধান লে. জেনারেল (অব) নূরুদ্দিন খান, সাবেক আইজিপি ড. এম এনামুল হক, সুপ্রিম কোর্ট আ্নজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ড. নাজুমল আহছান কলিম উল্লাহ প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত