প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইশতেহারের কতটুকু বাস্তবায়ন হয়, তা দেখবে জনগণ : সাখাওয়াত হোসেন

হ্যাপি আক্তার : তরুণদের জন্য কর্মসংস্থান, নিরাপদ নাগরিক সুব্যবস্থা এবং যানজটমুক্ত ঢাকা শহর। এই তিনটি সুবিধা নিশ্চিত করা রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন সাধারণ ভোটাররা। তবে নির্বাচনি ইশতেহার থেকে বেশি চিন্তিত নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে। আর বিশ্লেকরা বলছেন, ইশতেহারে উল্লেখ করা লক্ষ্যমাত্রা কতটা অর্জন হয়, সে দিকে খেয়াল রাখবে জনগণ। পাশাপাশি প্রয়োজন সুষ্ঠু নির্বাচনি পরিবেশ। সূত্র : চ্যানেল টোয়েন্টিফোর

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের যারাই নির্বাচিত হোক না কেন, ঘোষিত ইশতেহার বাস্তাবায়নে আন্তরিক হবেন বড় রাজনৈতিক দলগুলো। যদিও নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশ নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেকেরই। বড় দলগুলোর নির্বাচনী ইশতেহার নিয়ে সাধারণ মানুষের ভাবনা হলো, নির্বিঘেœ বাকি জীবন পার করা। ঢাকার নাগরিক জীবন হবে ঝঞ্জাট মুক্ত ও নিরাপদ। চিকিৎসায় আরো উন্নত করা দরকার। তবে ইশতেহারে যাই থাকুক না কেন, সাধারণ মানুষ বেশি উদ্বিগ্ন নিজে ভোটাধিকার নিয়ে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ইশতেহারে দীর্ঘ ও স্বল্প মেয়াদী লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের দিকে খেয়াল রাখবে জনগণ। পাশাপাশি বিশাল সংখ্যায় তরুণদের কর্মসংস্থান এবং দুর্নীতি মুক্ত সমাজ গঠনে ঘোষিত প্রতিশ্রুতিগুলো মূল্যায়ন করবে ভোটাররা।

এ বিষয় নিয়ে সাবেক নির্বাচন কমিশন ব্রি. (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, যে কোনো দেশের সরকারই শতভাগ চাকুরি দিতে পারে না। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে বেসরকারি খাতে যেভাবে উন্নয়ন হওয়ার কথা, সে ধরনের উন্নয়ন আমরা দেখছি না।
নির্বাচন বিশ্লেষক মনিরা খান বলেন, আগের ইশতেহার সঙ্গে এবারের যে ইশতেহার তা জনগণের মিলিয়ে দেখা উচিত। ইশতেহারে যে প্রতিজ্ঞা করে বড় দলগুলো,তা কতটুকু বাস্তবায়ন করেননি তা দেখবে জনগণ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত