প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী লীগের ইশতেহারের বিশেষ দিক

সমীরণ রায় : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশকে ‘উন্নয়নের মহাসড়কে’ পর এবার ‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি রয়েছে দলটির ইশতেহারে।

মঙ্গলবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আওয়ামী লীগের ইশতেহার ঘোষণা করেন দলটির সভাপতি শেখ হাসিনা। দশ বছরের অর্জন এবং আগামী দিনের লক্ষ্য ও পরিকল্পনা ধরে সাজানো হয়েছে ৮০ পৃষ্ঠার ইশতেহার। এই ইশতেহারে রয়েছে বেশ কিছু বিশেষ দিক। এরমধ্যে রয়েছে ২০২৩ সাল নাগাদ ১ কোটি ৫০ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি। রয়েছে রাশিয়া ও চীনসহ এশিয়ানভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও উন্নয়ন জোরদার করাসহ আন্তর্জাতিক যেকোনো বিরোধ শান্তিপূর্ণ সমাধানে ভূমিকা রাখবে। ভারতের সঙ্গে তিস্তাসহ অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন এবং দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য ও নিরাপত্তা সহযোগিতাসহ সব ক্ষেত্রে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি সংবাদমাধ্যম ও সাংবাদিকদের জন্য ফ্ল্যাট প্রকল্প গ্রহণ ও জাতীয় প্রেসক্লাবের প্রস্তাবিত ৩১ তলা ভবন নির্মাণে সহায়তা। পেশাগত দায়িত্ব পালনে সংবাদকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও সাংবাদিকদের কল্যাণে নতুন উদ্যোগ নেওয়া হবে।

ডিজিটাল দেশ গড়ার স্বপ্নপূরণে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়টি উঠে এসেছে। এতে ২০২১ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে ফাইভ-জি চালু করা, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবোটিএক্স, বিগ ডাটা, ব্লক চেইন, আইওটি-সহ ভবিষ্যৎ প্রযুক্তির বিকাশ ঘটানো, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২ এবং সাবমেরিন ক্যাবল-৩ স্থাপনে উদ্যোগ নেওয়া, ই-পাসপোর্ট, ই-ভিসা চালু, শিক্ষাকে পর্যায়ক্রমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে রূপান্তর, আর্থিক খাতে লেনদেন ডিজিটাল করা, তথ্যপ্রযুক্তির সফটওয়্যার, সেবা ও ডিজিটাল যন্ত্রের রফতানি ৭ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে বুলেট ট্রেন চালু। প্রথমে ঢাকা-চট্টগ্রাম। পরে বুলেট ট্রেন সিলেট, রাজশাহী, দিনাজপুর, পটুয়াখালী, খুলনা এবং কলকাতা পর্যন্ত স¤প্রসারণ করা। মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশ যৌথ উদ্যোগে ঢাকা পূর্ব-পশ্চিম এলিভেটেড হাইওয়ে নির্মাণ। এছাড়া সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোয় মেধা ও দক্ষতা বিবেচনায় রেখে যুক্তিসঙ্গত ব্যবস্থা গ্রহণ।

ইশতেহারে আরও বলা হয়, বিভেদ, হানাহানি, জ্বালাও-পোড়াও, অগ্নিসন্ত্রাস, অবরোধ বিশৃঙ্খলার রাজনীতি চাই না। চাই গণতান্ত্রিক পরিবেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। এছাড়াও দক্ষ জনপ্রশাসন ও জনহিতৈষী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গড়ে তোলা, দুর্নীতিমুক্ত সুশাসন-ব্যবস্থা, জনসংখ্যার আনুপাতিক হারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীতে জনবল নিয়োগ, জঙ্গিবাদ, সা¤প্রদায়িকতা, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স অবস্থান, ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন, ২০৩০ সালে মানুষের মাথাপিছু আয় ৫ হাজার ৪৭৯ ডলার বৃদ্ধি, প্রতি উপজেলা থেকে বছরে ১ হাজার যুবকের বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা, নারী উদ্যোক্তা বাড়ানোয় ব্যাংকিং ও ঋণ সুবিধা নিশ্চিত, ২০২৩ সালের মধ্যে ২৮ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ এবং ৫ হাজার মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি সরবরাহ, পদ্মা রেলসংযোগ, কক্সবাজার-দোহাজারী-রামু-গুনদুম রেলপথ নির্মাণ, পদ্মা সেতুর দু’পাড়ে শিল্পনগরী গড়ে তোলা, বিভাগীয় শহরে আইটি শিল্প পার্ক স্থাপন, উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট স্থাপন, ১ বছরের নিচে ও ৬৫ বছরের উপরে নাগরিকের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত, ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন, উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগ যমুনা নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণ, মুক্তিযুদ্ধকালীন বধ্যভূমি ও গণকবর চিহ্নিতকরণ, শহিদদের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা। পাশাপাশি কোরান-সুন্নাহ বিরোধী কোনো আইন না করা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত