প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যে কর্মকর্তারা এমপিকে সম্মান দিতেন, তারাই এখন নির্বাচন পরিচালনা দায়িত্বে : মো.শাহনেওয়াজ

জুয়েল খান : সাবেক নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বলেছেন, এমপি আগে এলাকায় গেলে যে সকল কর্মকর্তারা তাকে সম্মান জানাতো, তারাই এখন নির্বাচন পরিচালনার দায়িক্তপ্রাপ্ত, তাই তারা সেই এমপির সাথে কেমন আচরণ করবে। এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ আসলে সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখতে হবে। সোমবার রাতে ডিবিসি নিউজের এক আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনের শুরুতেই একপক্ষ বেশি সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে। যে পক্ষ ক্ষমতায় আছে তারাই বেশি সুবিধা নিচ্ছে। তারা শুরু থেকেই নির্বাচনী আচরণ মানছে না। মিডিয়াতে আসছে অমুক দলের নেতাকর্মীরা ৫০ টি মোটর সাইকেল নিয়ে প্রচারণা করছে, আর অন্যপক্ষ ১০ টি গাড়ি নিয়ে মহড়া দিয়েছে, আসলে এখানে উভয়দলই সঠিকভাবে আইন মানছে না। এক্ষেত্রে যারা সুবিধাজনক অবস্থানে আছে তারাই বেশি সুবিধা পাচ্ছে।

নির্বাচন কমিশনের অধীনে যেহেতু পুলিশ প্রশাসন আছে, তাই তাদের দায়িত্ব নির্বাচনী মাঠে কোনো ধরনের সহিংসতা দেখা দিলে অবশ্যই কঠোর ব্যবস্থা নেয়া। আর বিএনপির উচিত হবে ঢালাওভাবে অভিযোগ না করে নির্দিষ্ট বিষয়ে কমিশনের ভূমিকা নিয়ে গঠনমূলক সমালোচনা করা। বিএনপির কোনো দুঃখ প্রকাশ করার দরকার নাই, বিব্রত হওয়ারো দরকার নেই। বিএনপি শক্তভাবে যেখানে ঘটনা ঘটেছে নির্দিষ্টভাবে সেখানকার প্রশাসন কি কাজ করেছে তার বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়নি, কি ব্যবস্থা নিতে হবে সে বিষয়ে অভিযোগ করতে পারেন।

তিনি আরো বলেন, এবারের নির্বাচনে লেভেল-প্লেইং ফিল্ড নেই একেবারে ঢালাওভাবে বলা যাবে না। নির্বাচনে সবসময় এলাকাভিত্তিক সুবিধা নেয়। নির্বাচনের লেভেল প্লেইং ফিল্ড শতভাগ করা সম্ভব নয়। তবে তিন দিনের মধ্যে ড. কামাল হোসেনের গাড়িতে হামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এটা একটা ইতিবাচক দিক।

তিনি জানান, নির্বাচন প্রথম অবস্থায় সহজ সমীকরণ ছিলো, কোনো প্রকার দাবিদাওয়া না মানা সত্বেও সকল দল এবারের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে সেই পরিবেশ নেই। এখন দলগুলোর মধ্যে অসহিষ্ণুতা দেখা যাচ্ছে। এখন এক দল আরেক দলের কর্মীদের ওপরে হামলা, মাললা এবং ব্যক্তিগতভাবেই আক্রমণ করছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত